scorecardresearch
 

বাংলার 'বাঘিনী' মমতাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট শারদ-তেজস্বী-অখিলেশের

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানান দেশের বিরোধী দলের নেতারা। টুইটে তাঁরা শুভেচ্ছা জানান। বাংলার মানুষকেও শুভেচ্ছা জানিয়েছন তাঁরা।

মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়, তেজস্বী যাদব এবং অখিলেশ যাদব মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়, তেজস্বী যাদব এবং অখিলেশ যাদব
হাইলাইটস
  • বাংলার 'বাঘিনী'কে শুভেচ্ছা জানালেন বিজেপি বিরোধী দলের নেতারা
  • রবিবার বাংলার বিধানসভা ভোটের ফলাফল ঘোষিত হয়
  • দুপুর পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে, সেখানে এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস

বাংলার 'বাঘিনী'কে শুভেচ্ছা জানালেন বিজেপি বিরোধী দলগুলোর নেতারা। রবিবার বাংলার বিধানসভা ভোটের ফলাফল ঘোষিত হয়। দুপুর পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে, সেখানে এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

আর তারপরই মুখ্যমন্ত্রী, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানান দেশের বিরোধী দলের নেতারা। টুইটে তাঁরা শুভেচ্ছা জানান। বাংলার মানুষকেও শুভেচ্ছা জানিয়েছন তাঁরা।

এনসিপি নেতা শারদ পাওয়ার টুইটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। শারদ পাওয়ার বলেছেন, আপনার এই জয়ের জন্য শুভেচ্ছা। মানুষের জন্য যে কাজ আমরা করছিলাম এবং করোনা মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করছিলাম, চলুন সেই কাজ আমরা করতে থাকি।

এদিন শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত টুইট করেন। সেখানে তিনি বলেন, বাংলার 'বাঘিনী'কে শুভেচ্ছা। ও দিদি দিদি ও দিদি। উল্লেখ্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলায় ভোট প্রচারে 'দিদি ও দিদি' বলেছিলেন নিয়ে বিতর্কও তৈরি হয়।

মমতাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সমাজবাদী পার্টির সুপ্রিমো অখিলেশ যাদব। তিনিও টুইট করেছেন। সেখানে তিনি বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির হিংসার রাজনীতিকে হারিয়ে দিয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূল দলকে এই জয়ের জন্য অভিনন্দন। বিজেপি এক মহিলাকে 'দিদি ও দিদি' বলে কটাক্ষ করেছিল। মানুষ মুখের উপর জবাব দিয়েছেন। 'দিদি জিও দিদি'।

পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিনি বলেছেন এই জয়ের জন্য তাদেরকে শুভেচ্ছা জানাই বাংলার মানুষকে শুভেচ্ছা জানাই বিভাজনের রাজনীতির বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার জন্য।

শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব। পশ্চিমবঙ্গের 'মমতাময়ী' জনতাকে অভিনন্দন এবং শুভেচ্ছা। দেশে কঠিন পরিস্থিতি চলছে। তখন পশ্চিমবঙ্গের মানুষ ফের একবার নিজেদের মমতা আর ভরসা দিদির ওপর দেখিয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের নেতৃত্বের জয় হয়েছে।

বিধানসভা ভোটের আগে জাতীয় স্তরের বেশ কয়েকজন নেতানেত্রী সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমর্থন করার ঘোষণা করেছিলেন। এবং সে কারণে তারা বা তাদের দল এই রাজ্যে বিধানসভা ভোটে নিজেদের প্রার্থী দেয়নি। 

লালুপ্রসাদ যাদবের রাষ্ট্রীয় জনতা দল, অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টি বা উদ্ধব ঠাকরের শিবসেনা বাংলার ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। কখনও একা, কখনও বিভিন্ন জোটের হয়ে। এবার তারা কট্টর বিজেপি বিরোধী অবস্থান নিয়েছিল। আর সে কারণে মমতাকে সমর্থন করেছিল। নিজেরা আলাদা করে ভোটে লড়েনি। কোনও প্রার্থী দেয়নি।

 

 
; ; ;