scorecardresearch
 

West Bengal Election 2021 : দফা-৪, এই ২ প্রার্থীর কোনও সম্পদই নেই!

দেখা যাচ্ছে, রাজ্যের চতুর্থ দফার ভোট ২ জন এমন প্রার্থী রয়েছেন, যাঁদের কোনও সম্পত্তি নেই। স্থাবর বা অস্থাবর কোনও সম্পতি নেই তাঁদের কাছে। হলফনামায় তাঁরা এমনই জানিয়েছেন।

প্রার্থীদের তথ্য বিশ্লেষণ করে আকর্ষণীয় তথ্য পাওয়া গিয়েছে (প্রতীকি ছবি) প্রার্থীদের তথ্য বিশ্লেষণ করে আকর্ষণীয় তথ্য পাওয়া গিয়েছে (প্রতীকি ছবি)
হাইলাইটস
  • বাংলার বিধানসভা ভোটের চতুর্থ দফার ভোট ১০ এপ্রিল
  • ওই দিন ৪৪টি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হবে
  • সেখানকার প্রার্থীদের তথ্য বিশ্লেষণ করা হয়েছে

বাংলার বিধানসভা ভোটের চতুর্থ দফার ভোট ১০ এপ্রিল। ওই দিন ৪৪টি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হবে। সেখানকার প্রার্থীদের তথ্য বিশ্লেষণ করা হয়েছে। উঠে এসেছে আকর্ষণীয় পরিসংখ্যান।

দেখা যাচ্ছে, রাজ্যের চতুর্থ দফার ভোট ২ জন এমন প্রার্থী রয়েছেন, যাঁদের কোনও সম্পত্তি নেই। স্থাবর বা অস্থাবর কোনও সম্পতি নেই তাঁদের কাছে। হলফনামায় তাঁরা এমনই জানিয়েছেন।

তাঁরা হলেন বিনন্দ সিং এবং শ্রীলাল ওঁরাও। বিনন্দ নির্দল প্রার্থী হয়ে ভোটে দাঁড়িয়েছেন। তিনি দক্ষিণ ২৪ পরগণার সোনারপুর উত্তর থেকে ভোটে লড়ছেন। এমনই আরও এক প্রার্থীর খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। তিনি হলেন শ্রীলাল ওঁরাও। তিনি আলিপুরদুয়ারের কুমারগ্রাম থেকে লড়ছেন। কামতাপুর পিপলস পার্টির হয়ে ভোটে দাঁড়িয়েছেন তিনি। হলফনামায় ওই দুই প্রার্থীই জানিয়েছেন। তাঁদের স্থাবর, অস্থাবর সম্পত্তি বলতে কিছু নেই।

রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের বিষয়ে বিশ্লেষণ করেন এডিআর নামে একটি সংস্থা। তাদের বিশ্লেষণ থেকে এই তথ্য পাওয়া গিয়েছে। প্রার্থীরা নির্বাচন কমিশনের কাছে যে হলফনামা জমা দিয়েছেন, তা খতিয়ে দেখে এই তথ্য জানা গিয়েছে।

অন্যদ্কে, সম্পদের পরিমাণ খুবই সামান্য, এমন কয়েকজন প্রার্থী চতুর্থ দফার ভোটে লড়ছেন। তঁদের মধ্যে কয়েকটি মিল পাওয়া গিয়েছে! তাঁরা তিনজনই দক্ষিণ ২৪ পরগণার বিভিন্ন বিদানসভা কেন্দ্র থেকে লড়ছেন। আর তাঁরা নির্দল প্রার্থী হিসেবে ভোটের ময়দানে নেমেছেন।

তাঁদের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে, তাঁদের স্থাবর কোনও সম্মত্তি নেই। হাতে সামান্য নগদ রয়েছে। ভাঙড় বিধানসভার নওসর আলি মোল্লার অস্থাবর সম্পত্তি বলতে নগদ ৫০০ টাকা। যাদবপুরের মিস্টু দাসের স্থাবর সম্পত্তি ৫০৫ টাকা। আর ওই কেন্দ্রেরই আরও এক প্রার্থী মেঘা চট্টোপাধ্যায়ের হাতে রয়েছে ৫১৭ টাকা।

এদিকে, এই দফার ভোটে ৫ কোটি টাকা বা তার বেশি সম্পদ রয়েছে এমন প্রার্থীর সংখ্যা ১৬। শতাংশের বিচারে তা হল ৪। ১০ লক্ষের কম সম্পত্তি রয়েছে এমন প্রার্থী রয়েছেন ১৬২ জন, অর্থাৎ মোট প্রার্থীর নিরিখে ৪৪ শতাংশ।