scorecardresearch
 

সীতাকে নিয়ে মন্তব্য! কুণালকে হাজিরার সমন ত্রিপুরার আদালতের

তিনি আদালতে হাজির হবেন বলে জানিয়েছেন কুণাল। তাঁর কথায়,'আমিও হিন্দু। কোনও ধর্মকে আঘাত করিনি।' সুকান্ত মজুমদার বলেন,'ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছেন বলেই ডেকেছে।'

কুণাল ঘোষ- প্রতীকী ছবি। কুণাল ঘোষ- প্রতীকী ছবি।
হাইলাইটস
  • ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার অভিযোগ।
  • ণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের নামে সমন জারি।
  • ৩০ মে এজলাসে উপস্থিত থাকার জন্য তাঁকে সমন।

ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার অভিযোগে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের নামে সমন জারি করল ত্রিপুরার অমরাবতী জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। তাঁর বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই চার্জশিট পেশ করেছে সে রাজ্যের পুলিশ। ত্রিপুরায় প্রচারে গিয়ে সীতার সম্পর্কে মন্তব্যের জন্য কুণালের বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ। 

সীতার পাতালপ্রবেশকে উপমা হিসেবে ব্যবহার করে বিজেপিকে নিশানা করেছিলেন কুণাল। তিনি বলেছিলেন, জয় সীতারাম বা সিয়ারাম থেকে ইচ্ছাকৃতভাবে সীতাকে বাদ দেওয়া হয়েছে। রামরাজ্যে অপমানিত হয়ে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে বনবাসে যেতে হয়েছিল। তার পর পাতালপ্রবেশ করেছিলেন সীতা। কুণালের এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ। ওই মামলায় গতবছর ত্রিপুরার বাগমা থানায় হাজির হয়ে জেরার সম্মুখীন হন তৃণমূল নেতা। বিভিন্ন বইপত্তর ও গবেষণাপত্র সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন। তখন তিনি দাবি করেছিলেন, তাঁর দাবির পক্ষে পৌরাণিক দস্তাবেজ রয়েছে।

কুণালকে জিজ্ঞাসাবাদের ৬ মাস পর মামলায় চার্জশিট পেশ করেছে ত্রিপুরা পুলিশ। এই মামলায় ৩০ মে এজলাসে উপস্থিত থাকার জন্য তাঁকে সমন পাঠিয়েছে আদালত।

তিনি আদালতে হাজির হবেন বলে জানিয়েছেন কুণাল। তাঁর কথায়,'আমিও হিন্দু। কোনও ধর্মকে আঘাত করিনি। বিজেপি যে রামের নামে রাজনীতি করে সেই তাঁর স্ত্রী সীতাকে নিয়ে সত্যি কথাই বলেছি। আমি আদালতের সমনে হাজির হব। পুলিশের কাছে গিয়ে প্রমাণও দিয়েছিলাম। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ফাঁসানো হচ্ছে।' বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন,'ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছেন বলেই ডেকেছে। আর আমরা তো জয় শ্রী রাম বলি। ভারতের প্রাণপুরুষ তিনি। আর ওরা বাংলাদেশের স্লোগান বলতেই পারেন।'

আরও পড়ুন- পাণ্ডবেশ্বরে এক্সের বাড়ির সামনে বোমাবাজি যুবকের, জখম ৪