scorecardresearch
 

'হাতের কাছে পেলে ভাল করে গায়ে হাত বুলিয়ে দিতাম!' BJP-কে তোপ মমতার

এদিন বিধানসভার অধ্য়ক্ষ হিসেবে বিমান বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে নির্বাচিত করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) বিধানসভায় বলেন, অভিনন্দন, তাঁর পরিবারকে ধন্যবাদ জানাই।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়
হাইলাইটস
  • ফেক ভিডিয়ো শুরু করেছে
  • বক্তব্য দেখে গা শিউরে উঠছে, হাতের কাছে পেলে ভাল করে গায়ে হাত বুলিয়ে দিতাম
  • শনিবার বিজেপি নেতাদের এই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়

ফেক ভিডিয়ো শুরু করেছে। বক্তব্য দেখে গা শিউরে উঠছে। হাতের কাছে পেলে ভাল করে গায়ে হাত বুলিয়ে দিতাম! শনিবার বিজেপি নেতাদের এই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee)।

এদিন বিধানসভার অধ্য়ক্ষ হিসেবে বিমান বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে নির্বাচিত করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) বিধানসভায় বলেন, অভিনন্দন, তাঁর পরিবারকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা সকলকে অভিনন্দন জানাই। পার্থ ঠিকই বলেছেন, হ্য়াটট্রিক। এই টার্মটা ঐতিহাসিক। আমরা খুশি। বিধানসভার কার্যপ্রণালী স্পিকারের হাতে ন্যস্ত করা হল। বিধানসভার ঐতিহ্য, জাগরণ, সম্প্রীতি, নিজস্বতা আছে। 

তিনি বলেন, সতীদাহ এই বিধানসভায় পাশ হয়েছে। ভারতের যত বিধানসভা আছে, তার থেরে কোনও অংশে কম নয়। একটা জিনিস শুনলে খুশি হবেন। সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত তৃণমূল

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) বলেন, দলের প্রার্থীরা ৩১ হাজার ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছে। অবিশ্বাস্য ঘটনা। মিরাকেল। মানুষের সম্পূর্ণ সহযোগিতা না পেলে এটা হতে পারে না। বাংলার নারীশক্তির কাছে কৃতজ্ঞতায় মাথা নত হয়ে যাচ্ছে। তাঁদের অভিনন্দন, শুভেচ্ছা। মা-বোনেদের জন্য আরও কী করে সম্মান জানানো যায়, তার চেষ্টা করবে। অনেকের কোভিড হয়েছে, তাঁরা ভোট দিয়েছেন। অনেক চক্রান্ত হয়েছে।

তাঁর অভিযোগ, কমিশনের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় কোথাও কোথাও রিগিং। নির্বাচনী সংস্কার দরকার। তিন অফিসার কাজ করছেন। চিরকুট দিয়ে ট্রান্সফার করে দিচ্ছে। এ জিনিস যেন না হয়। বাংলার মানুষ প্রমাণ করে দিয়েছে বাংলার মেরুদণ্ড সর্বদাই শক্তিশালী। বাংলার মেরুদণ্ড কখনই মাথা নত করে না।

তাঁর আরও অভিযোগ, এত চক্রান্ত। দেশের সরকার, তাদের রাজ্যের বিভিন্ন সরকার, মন্ত্রী। কত কোটি টাকা হোটেল, প্লেন ভাড়া দিয়েছে। পাইপ দিয়ে যেন টাকা বেরচ্ছে। এই টাকা খরচ করে টিকা দিলে সার্বজনীন টিকা দেওয়া যেত।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) বলেন, ৩০ হাজার কোটি টাকা মতো খরচ হত টিকা দিতে। কেন্দ্রের কাছে এই টাকা কিছুই না। লোকসভার বিল্ডিং সহ, প্রধানমন্ত্রীর বাড়ি সহ ৫০ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে।

টিকা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) আরও বলেন, পয়সা দরকার হলে আমরা দেব। পশ্চিমবঙ্গ সরকার গরিব হতে পারে। যা টাকা লাগবে দেবে। টিকাকরণ আমাদের হাতে নেই। এটা কেন্দ্রের হাতে। অক্সিজেন ভাগ করার দায়িত্ব আমাদের নেই। আমাদের সাড়ে ৫০০ মেট্রিক টন দরকার। তবে নিয়ে যাচ্ছে। কী দোষ করেছে বাংলা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) আরও অভিযোগ করেন। দাবি, গণতন্ত্রে পক্ষে লজ্জা নয়, প্রশ্নের মুখে এনে নিয়েছে। বিজেপি পার্টি অফিস থেকে যা বলা হয়েছে, তাই করে দেওয়া হয়েছে। অযোগ্য লোকেদের বসানো হয়ছিল।

মমতা বলেন, আমরা শান্তির পক্ষে। হিংসা বিশ্বাস করি না। হেরে গিয়েছেন হারটা মেনে নিন। যেখানে জিতে গিয়েছেন হিংসা করবেন না। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) তাঁর অভিযোগ, এক মহিলাকে রেপ করতে চাওয়া হয়েছে। মেয়েটার কাচে পুলিশ পাঠালাম। মা, বোনেরা আমার গর্ব। একটা গাছ কাটা নিয়ে লোকাল গণ্ডগোল।

এরপর মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) আরও বলেন, আমি সেই ভদ্রলোককে বললাম কেউ পাঠাল আর আপনি পাঠিয়ে দিলেন! তারা জনগণের রায়ে মেনে নিতে পারছে না। ফেক ভিডিয়ো শুরু করেছে। বক্তব্য দেখে গা শিউরে। হাতের কাছে পেলে ভাল করে গায়ে হাত বুলিয়ে দিতাম। 

তাঁর বার্তা, দেখবেন এলাকা যেন শান্তিপূর্ণ। কেউ দাঙ্গা বাধাতে চাইলে এফআইআর করবেন। কেউ ঘরে ঢুকে থাকবেন না। সারা দেশ কোভিডের ধ্বংস করে দিয়েছে। বাংলরা মানুষ দাঙ্গা পছন্দ করে না। ২৭ তারিখ কেষ্টর বাড়িতে এজেন্সি পাঠিয়ে দিয়েছে। 

বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) বলেন, আজ বাংলা পেলে কী যেন করত কে জানে। আমাদের সব কেড়ে নিয়ে চলে যাচ্ছে। শাড়ির চেয়ে গামছা বড়ো। শুধু বসে বসে প্রশাসনে বিরক্ত করা।

তিনি আরও বলেন, আরও বিনয়ী হতে হবে। আরও জনগণের কাছে পৌঁছতে হবে। যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি, তা পূরণ করব। এলাকায় যাতে কোনও বিশৃঙ্খলা না করতে পারে। দাঙ্গা করতে দেব না। সাম্প্রদায়িকতা কিছুতেই মানব না।

তাঁর কটাক্ষ, ইলেকশন কমিশনে দয়ায় জিতে এসেছে। জনগণের দয়ায় ঠিক আছে, মেনে নিচ্ছে। জনগণ বয়কট করেছে, তাতেও ওঁদের লজ্জা নেই। ইলেকশন কমিশন সাহায্য না করলে ৩০টা সিটও পেত না।