scorecardresearch
 

FIFA World Cup 2022: রোনাল্ডোদের ম্যাচের মাঝেই রংধনু পতাকা নিয়ে মাঠে সমর্থক, তারপর...

FIFA World Cup 2022: বিশ্বকাপের ম্যাচের মাঝেই রংধনু পতাকা নিয়ে মাঠে ঢুকে পড়লেন এক সমর্থক। দ্বিতীয়ার্ধের ম্যাচ শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই দেখা যায় এই দৃশ্য। কিছুক্ষণের জন্য ম্যাচ বন্ধ রাখতে হয়। 

রেনবো পতাকা নিয়ে মাঠে সমর্থক রেনবো পতাকা নিয়ে মাঠে সমর্থক
হাইলাইটস
  • রংধনু পতাকা নিয়ে মাঠের মধ্যে সমর্থক
  • ভাইরাল ভিডিও

FIFA World Cup 2022: বিশ্বকাপের ম্যাচের মাঝেই রংধনু পতাকা নিয়ে মাঠে ঢুকে পড়লেন এক সমর্থক। দ্বিতীয়ার্ধের ম্যাচ শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই দেখা যায় এই দৃশ্য। কিছুক্ষণের জন্য ম্যাচ বন্ধ রাখতে হয়। পর্তুগাল ১-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার কয়েক মিনিট আগে ঘটনাটি ঘটে । যে ভক্ত পতাকাটি ধরেছিলেন তারও একটি টি-শার্ট পরা ছিল যার সামনে লেখা ছিল 'সেভ ইউক্রেন ' এবং পিছনে লেখা 'ইরানী মহিলাদের জন্য সম্মান'।

বিশ্বকাপের সব খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন 

কাতারে সমকামী প্রেম নিষিদ্ধ। ফলে বিশ্বকাপের প্রথমদিকে রংধনু পতাকা বা টুপি পরে মাঠে ঢোকা নিষিদ্ধ ছিল। তবে বিতর্কের মাঝে পিছু হটে কাতার প্রশাসন। মাঠে রংধনু টুপি বা পতাকা নিয়ে মাঠে ঢোকার ক্ষেত্রে নিষেদ্ধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়। লুসেইল স্টেডিয়ামে সেই সুযোগ নিয়েই মাঠের মধ্যে ঢুকে পড়েন সেই সমর্থক। ইরানের রেফারি আলিরেজা ফাঘনি রামধনু পতাকাটি তুলে নেন।

আরও পড়ুন: ব্রাজিল-সুইৎজারল্যান্ড ম্যাচের মাঝেই বিপত্তি, নিভল আলো

কিছুক্ষণ বন্ধ থাকার পর ফের শুরু হয় ম্যাচ। সমকামী প্রেমের প্রতি সমর্থন জানাতে গেলেও শাস্তি হতে পারে। ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড নিয়ে ইতিমধ্যেই সরগরম হয়েছে বিশ্বকাপের মঞ্চ। রেনবো টি শার্ট পরায় গ্রান্ট ওয়াহল নামে একজন আমেরিকান সাংবাদিককে অল্প সময়ের জন্য গ্রেফতার করা হয়। তবে শুক্রবার থেকে দেখা গেল অন্য এক দৃশ্য। ইরান বনাম ওয়েলসের (Iran vs Wales) ম্যাচে রেনবো টুপি পরে এলেন প্রচুর ওয়েলস সমর্থক। 

আরও পড়ুন: শেষ ১৬-তে ফ্রান্সের, পরের রাউন্ডে যাওয়া নিশ্চিত রোনাল্ডো-মেসিদের?

ম্যাচ শুরু হওয়ার পরেই দেখা যায় রামধনু টুপি পরে মাঠে ঢুকে পড়েছেন ওয়েলসের প্রচুর সমর্থক। আসলে ফিফার পক্ষ থেকে ওয়েলস ফ্যানদের আশ্বস্ত করা হয়, তাঁরা রামধনু টুপি পরে মাঠে ঢুকতে পারবেন। এবার থেকে সমস্ত ম্যাচেই রেনবো টুপি বা পতাকা নিয়ে আসতে পারবেন সমর্থকরা। 

ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন অফ ওয়েলসের পক্ষ থেকে বিদ্রোহের সুর শোনা যেতেই নড়েচড়ে বসে ফিফা। কাতার প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে তারা জানিয়ে দেয়, রেনবো টিশার্ট, পতাকা নিয়ে আসতে পারেন সমর্থকরা। আগে ওয়েলস ফুটবল সংস্থার পক্ষ থেকে তাদের কর্তা নোয়েল মুনি জানিয়েছিলেন, 'আমাদের বলা হয়েছিল কাতারে সকলকে স্বাগতম। দারুণ বিশ্বকাপ হতে চলেছে। তবে বিশবকাপ শুরু হতেই উল্টো চিত্র দেখা গিয়েছে। ভক্তদের মাথা থেকে টুপি খুলে নেওয়ার ঘটনা মারাত্মক। ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড পড়তে না দিয়ে খেলোয়াড়দের কণ্ঠ রোধ করার চেষ্টা করা হয়েছে। এর জন্য আমরা হতাশ।"