scorecardresearch
 

India vs South Africa : চোট পেয়ে বাইরে বিরাট, ম্যাচের নেতৃত্বে কেএল রাহুল

পিঠে চোট ক্যাপ্টেন কোহলির। ফলে ম্যাচের আগেই দুঃসংবাদ ভারতীয় শিবিরে। কোহলির বদলে হনুমা বিহারীকে তড়িঘড়ি স্কোয়াডে জায়গা দেওয়া হয়। ক্যাপ্টেন করা হল কেএল রাহুলকে। যদিও টস জিতে ভাল শুরু করে উদ্বেগ খানিকটা কাটিয়েছে রাহুল-মায়াঙ্ক জুটি।

বিরাটের চোটে কপাল খুলল রাহুলের বিরাটের চোটে কপাল খুলল রাহুলের
হাইলাইটস
  • বিরাটের চোট, দ্বিতীয় টেস্টে বাইরে তিনি
  • অধিনায়কত্ব সামলাবেন কেএল রাহুল
  • বিরাটের জায়গায় দলে হনুমা বিহারী

জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডার্স স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্টে কেএল রাহুলের নেতৃত্বে নামল ভারত। নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলি পিঠের উপরের অংশে আচমকা ব্যথা শুরু হলে তাঁকে বাদ রেখেই প্রথম একাদশ সাজানো হয়। রাহুলকে ক্যাপ্টেনের ব্যাটন তুলে দেওয়া হয়। তবে ব্য়াটসম্যান হিসেবে দলে আসেন হনুমা বিহারী। শ্রেয়স আইয়ারকে আরও অপেক্ষা করতে হবে। তবে কেপটাউনে সিরিজের ফাইনাল ম্য়াচে তিনি ফিরে আসবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

কেএল রাহুল ২০ তম অধিনায়ক হিসেবে টস করতে যান। সঠিকভাবে কল করেন। টস জিতে ব্য়াট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। ভারত দ্বিতীয় টেস্টে ব্যাট শুরু করে মায়াঙ্ক ও তাঁর ব্যাটে সলিড স্টার্ট করে। তিনি নিশ্চিত করেছেন যে জোহানেসবার্গে ফিজিও দ্বারা কোহলিকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

"দুর্ভাগ্যবশত বিরাটের পিঠের উপরের অংশে খিঁচুনি হয়েছে, ফিজিওরা তার উপর কাজ করছেন এবং আশা করি তিনি পরবর্তী টেস্টের জন্য সুস্থ হয়ে উঠবেন," তিনি টসের পর জানান।

প্রথম টেস্টে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ নির্বাচিত কেএল রাহুলকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ওডিআই সিরিজের জন্যও অধিনায়ক মনোনীত করা হয়েছে কারণ রোহিত শর্মা তার চোট থেকে সেরে উঠছেন।

এদিকে কেএল রাহুল বলেছেন, বিরাট কোহলির বদলি হিসেবে হনুমা বিহারিকে নামানো হয়েছে। রাহুল, যিনি ভারতের ২০তম টেস্ট অধিনায়ক হয়েছেন, বলেছেন দর্শকরা সেঞ্চুরিয়নে ভাল খেলা চালিয়ে যেতে দেখবে। পাশাপাশি বিরাটের অভাব যাতে অনুভূত না হয়, তার জন্য বাড়তি ঝাঁপাতে হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

"প্রত্যেক ভারতীয় খেলোয়াড়ের স্বপ্ন তার দেশের অধিনায়কত্ব করা। সত্যিই সম্মানিত এবং এই চ্যালেঞ্জের জন্য উন্মুখ। আমরা এখানে কয়েকটি ভাল জয় পেয়েছি এবং আশা করি, আমরা তা চালিয়ে যেতে চাই," রাহুল বলেছেন।

বিরাট কোহলির ব্যাটিং ফর্ম কিছু সময়ের জন্য স্পটলাইটের নীচে রয়েছে। ২০২০ এর শুরু থেকে ১৪ ম্যাচে ২৬.০৮ গড়ে মাত্র ৬৫২ রান করতে পেরেছেন। কোহলি ওয়ান্ডারার্সে একশ এবং ২ অর্ধশতক সহ ৩১০ রান করেছেন। যেখানে ভারত কখনও টেস্ট ম্যাচ হারেনি।