scorecardresearch
 

'Love is in the air', এবার স্ক্রিনে একসঙ্গে দেখা যাবে শোয়েব-সানিয়া জুটিকে-Video

টেনিস বিশ্বে ভারতের পতাকা তুলেছেন সানিয়া মির্জা। এখন সানিয়া মির্জা একটি প্রকল্পে কাজ করছেন, যার টিজার তিনি শেয়ার করেছেন। সানিয়ার স্বামী শোয়েব মালিকও তাকে এই প্রকল্পে সহযোগিতা করছেন। এমন পরিস্থিতিতে সিনেমার পর্দায়ও একসঙ্গে দেখা যাবে দুজনের রসায়ন।

সানিয়া মির্জা ও শোয়েব মালিক। ফাইল ছবি। সানিয়া মির্জা ও শোয়েব মালিক। ফাইল ছবি।
হাইলাইটস
  • টেনিস বিশ্বে ভারতের পতাকা তুলেছেন সানিয়া মির্জা
  • সানিয়া স্ত্রী পাক ক্রিকেটার শোয়েব মালিকের

টেনিস বিশ্বে ভারতের পতাকা তুলেছেন সানিয়া মির্জা। এখন সানিয়া মির্জা একটি প্রকল্পে কাজ করছেন, যার টিজার তিনি শেয়ার করেছেন। সানিয়ার স্বামী শোয়েব মালিকও তাকে এই প্রকল্পে সহযোগিতা করছেন। এমন পরিস্থিতিতে সিনেমার পর্দায়ও একসঙ্গে দেখা যাবে দুজনের রসায়ন।


ইনস্টাগ্রামে ভিডিওটি শেয়ার করে সানিয়া লিখেছেন, 'আমি যে প্রোজেক্টে কাজ করছি তার টিজার শেয়ার করতে পেরে উত্তেজিত। শীঘ্রই আসছে এর সম্পূর্ণ সংস্করণের জন্য সাথে থাকুন। এছাড়াও, সানিয়া #loveisInTheAir হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করেছেন।

খেলাধুলার পাশাপাশি সানিয়া মির্জা এবং শোয়েব মালিকের ব্যক্তিগত জীবনও বেশ সফল। শোয়েব মালিক এবং সানিয়া মির্জা ১২ এপ্রিল ২০১০ হায়দরাবাদে একটি ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠানে গাঁটছড়া বাঁধেন। এরপর বিয়ের দশ বছর পর তাদের ঘরে জন্ম নেয় ছেলে ইজহান। দুজনেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সক্রিয়। সম্প্রতি তার ছেলে ইজানের স্বাস্থ্যের অবনতি হয়, যার কারণে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ ছেড়ে দুবাই পৌঁছে যান শোয়েব।

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Sania Mirza (@mirzasaniar)

 


সানিয়া ২০১৫ সালের এপ্রিল মাসে ছয়টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জিতেছে, সানিয়া মির্জা মহিলাদের ডাবলস র‌্যাঙ্কিংয়ে প্রথম অবস্থানে উঠে এসেছেন। তিনি ভারতের প্রথম মহিলা টেনিস খেলোয়াড় যিনি এই কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। সানিয়া মির্জা এখনও পর্যন্ত ছয়টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জিতেছেন, যার মধ্যে তিনটি মহিলা ডাবল এবং অনেকগুলি মিশ্র বড় শিরোপা রয়েছে৷ ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের মহিলা ডাবলস শিরোপা জিতে তিনি তার শেষ গ্র্যান্ড স্ল্যাম অর্জন করেছিলেন।


২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তান দলের সেমিফাইনালে যাওয়ার ক্ষেত্রেও শোয়েব মালিক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। নিউজিল্যান্ড ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন মালিক। এরপর স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ লিগ ম্যাচে ১৮ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেন।