scorecardresearch
 

I League 2022: বাংলার মহমেডানকে হারিয়ে I League চ্যাম্পিয়ন কেরলের গোকুলাম

ইতিহাসের সামনে দাঁড়িয়ে মহামেডানের সামনে জেতা ছাড়া কোনও রাস্তা ছিল না। রক্ষণ জমাট রেখে ৫-৩-২ ফর্মেশনে দল সাজিয়েছিলেন মহামেডানের রুশ কোচ আন্দ্রে চেরনিশভ। লিগে ১৫ গোল করা মার্কাস জোশেফ এবং শেখ ফৈয়াজকে সামনে রেখে প্রতিআক্রমণ নির্ভর ফুটবলকেই অস্ত্র করেছিলেন সাদা-কালো কোচ। কিন্তু টিম গেম অস্ত্রেই বাজিমাত করে গোকুলাম। স্লোভানিয়ার স্ট্রাইকার লুকা মাজসেনের অনবদ্য ফুটবল মহামেডানের যাবতীয় প্রচেষ্টায় জল ঢেলে দেয়। তাঁর পাস থেকেই দু’টি গোল গোকুলামের। প্রথম দিকে একের পর এক আক্রমণ করলেও গোল করতে পারেনি মহমেডান। 

আই লিগ জয় উদযাপন করছেন গোকুলাম ফুটবলাররা আই লিগ জয় উদযাপন করছেন গোকুলাম ফুটবলাররা
হাইলাইটস
  • পরপর দুইবার আই লিগ জিতল গোকুলাম
  • ২-১ গোলে হারাল মহমেডানকে

এবারেও হল না। ইতিহাস গড়তে ব্যর্থ মহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব (Mohammedan Sporting Club)। টানা দু'বার আইলিগ ( I-league) চ‍্যাম্পিয়ন গোকুলাম কেরল (Gokulam Kerala)। শনিবার সাদা-কালো ব্রিগেডকে ২-১ হারিয়েই দিল তারা। আই লিগ জয়ের স্বপ্ন অধরাই থাকল মহামেডানের। প্রিয় দলের প্রথমবার আই লিগ জয়ের স্বাদ নিতে যুবভারতী ভরিয়েছিলেন শতাব্দী প্রাচীন মহমেডান দলের সমর্থকরা। শেখ ফৈয়াজদের হয়ে গলা ফাটাতে হাজির হয়েছিল ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগানের সমর্থকরাও। প্রায় ৪০ হাজার দর্শককে হতাশ হয়েই ফিরতে হল যুবভারতী থেকে। মহামেডানকে ২-১ গোলে হারিয়ে পরপর দু’বার আই লিগ জিতল গোকুলাম কেরল এফসি। যদিও ড্র করলেও চ্যাম্পিয়ন হওয়া আটকাত না তাদের। গোকুলামের দুই গোলদাতা রিশদ এবং এমিল বেনি। মহামেডানের হয়ে গোল দেন আজহারউদ্দিন মল্লিক। ১৮ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন গোকুলাম। ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে আই লিগ রানার্স মহমেডান। কয়েকদিন আগেই সন্তোষে কেরলের কাছে টাইব্রেকারে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয় বাংলার। এদিন ফের বাংলার ক্লাবের সামনে ছিল কেরলের ক্লাব। কিন্তু এবারও বদলা নেওয়া হল না। 

ইতিহাসের সামনে দাঁড়িয়ে মহামেডানের সামনে জেতা ছাড়া কোনও রাস্তা ছিল না। রক্ষণ জমাট রেখে ৫-৩-২ ফর্মেশনে দল সাজিয়েছিলেন মহামেডানের রুশ কোচ আন্দ্রে চেরনিশভ। লিগে ১৫ গোল করা মার্কাস জোশেফ এবং শেখ ফৈয়াজকে সামনে রেখে প্রতিআক্রমণ নির্ভর ফুটবলকেই অস্ত্র করেছিলেন সাদা-কালো কোচ। কিন্তু টিম গেম অস্ত্রেই বাজিমাত করে গোকুলাম। স্লোভানিয়ার স্ট্রাইকার লুকা মাজসেনের অনবদ্য ফুটবল মহামেডানের যাবতীয় প্রচেষ্টায় জল ঢেলে দেয়। তাঁর পাস থেকেই দু’টি গোল গোকুলামের। প্রথম দিকে একের পর এক আক্রমণ করলেও গোল করতে পারেনি মহমেডান। 

আরও পড়ুন: ফের DRS বিতর্ক IPL-এ, নিজের ভুলেই আউট রিঙ্কু?

দ্বিতীয়ার্ধে মহামেডান রক্ষণের ভুলেই ৪৯ মিনিটে প্রথম গোল করে যায় গোকুলাম। লুকার পাস থেকে গোল করে কেরলের দলটিকে এগিয়ে দেন রিশদ। তবে লিড বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি তারা। মহমেডান দ্রুতই ম্যাচে সমতা ফেরায়। মার্কাসের অসাধরণ ফ্রিকিক আজহারউদ্দিনের গায়ে লেগে গোলে ঢোকে। কিন্তু ফের রক্ষণের ভুলে গোল খেতে হয় মহামেডানকে। ৬১ মিনিটে সেই লুকার থ্রু ধরেই গোল করে যান এমিল বেনি। এর পর গোল শোধ করার সহজ সুযোগ পেয়েও তা হাতছাড়া করেন মার্কাস, আজহাররা। এদিন, যুবভারতীতে এসে এএফসি কাপের আগে প্রতিপক্ষ গোকুলামের খেলা দেখে যান এটিকে মোহনবাগান ও বাংলাদেশের বসুন্ধরা কিংসের কোচ, ফুটবলাররা। ম্যাচ দেখতে হাজির ছিলেন ভারতীয় ফুটবল দলের কোচ ইগর স্টিম্যাচও।