scorecardresearch
 

BLM মুভমেন্টে আপত্তি, বাদ পড়লেন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা খেলোয়াড়

BLM মুভমেন্ট সমর্থন করতে আপত্তি করে দল থেকে বাদ গেলেন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান কুইন্টন-ডি-কক। কেন আপত্তি ?

বিতর্কে ডি-কক, বিতর্কে দক্ষিণ আফ্রিকা বিতর্কে ডি-কক, বিতর্কে দক্ষিণ আফ্রিকা
হাইলাইটস
  • বিএলএম মুভমেন্টে আপত্তি
  • দল থেকে বাদ কুইন্টন ডি-কক
  • বিতর্কে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট

টি-টোয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপ ২০২১-এ ফের বর্ণবিদ্বেষ বিতর্ক। আবার কেন্দ্রে দক্ষিণ আফ্রিকা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে মোকাবিলা শুরু হওয়ার আগে সাউথ আফ্রিকার দল জড়িয়ে পড়ল বিতর্কে।

মুভমেন্টে আপত্তি করেন ডি-কক

প্রকৃতপক্ষে সোমবার ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা ঘোষণা করে নেতাদের দল প্রত্যেক খেলার আগে হাঁটু মুড়ে বসে বিএলএম(BLM) মুভমেন্টকে সাপোর্ট করবে। প্রতিটি দলকে সাপোর্ট করছে। দক্ষিণ আফ্রিকাও সমর্থন করতে স্বীকার করে। কিন্তু সাউথ আফ্রিকার উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক বোর্ডের ঘোষণায় খুশি নন। তিনি ওই মুভমেন্ট সমর্থন করতে আপত্তি করেন। যা নিয়ে অস্বস্তি হতে পারে বলে তাঁকে প্রথম একাদশ থেকে বাদ দেওয়া হয়।

বিরোধিতা করে বাদ ডি-কক

খেলা শুরু হওয়ার আগেই তিনি প্লেইং ইলেভেন থেকে বাদ পড়ে যান। এর কারণ, ডিএলএফ মুভমেন্টের বিরোধ করেছেন। তাঁর জায়গায় ঋজা হেনড্রিক্সকে খেলানো হয়। যা নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক তেম্বা বাভুমাকে যখন প্লেইং ইলেভেন নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হয়, তখন তিনি জানান, তিনি প্রকৃতপক্ষে না খেলার পিছনে ব্যক্তিগত কারণ বলে জানিয়েছেন।

কড়া ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা

তিনি প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও, দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট সংস্থা বর্ণবিদ্বেষের প্রতি সবাই একজোট হওয়া অত্যন্ত জরুরি বলে আগেই স্বীকার করেছিল। বিশেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকার ইতিহাসে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। বোর্ডের বিচার ছিল দৈনিক জীবনে অভিব্যক্তি জন্য বিভিন্ন দিক হওয়া উচিত। কিন্তু বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে স্ট্যান্ড নেওয়ার ব্যাপারে সবাইকে একসঙ্গে প্রতিবাদ করা উচিত।

গত বছরই মুভমেন্ট সমর্থন করে দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ড

গত বছর এই মুভমেন্টের শুরু হয়। দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবিদ্বেষ বিরোধী আন্দোলনকে সমর্থন করে এবং কড়া দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে বিষয়টিকে দেখছে বলে জানায়। কিন্তু জাতীয় দল কখনও একসঙ্গে হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদ জানায়নি। গত বছর জুলাইয়ে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের সময় নির্দেশক গ্রেম স্মিথ এর সঙ্গে টুর্নামেন্টের শামিল সমস্ত খেলোয়াড়, সাপোর্ট স্টাফ এবং প্রশাসক খেলার আগে হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদকে সমর্থন করেন।

মুভমেন্ট বিরোধী ডি কক

এ বছর সাউথ আফ্রিকা ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের সময় সহমত পোষণ করা হয়েছিল যে দক্ষিণ আফ্রিকার সমস্ত খেলোয়াড়রা বিএলএম সমর্থন করবেন। প্রতি ম্যাচের আগে হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদ করবে এবং পাশাপাশি মুষ্টিবদ্ধ হাত আকাশের দিকে ছুঁড়ে দেবে। তবে কে কীভাবে প্রতিবাদ করবে তা ব্যক্তিগত পছন্দের উপর ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। অশ্বেতাঙ্গ ছাড়াও কিছু শ্বেতাঙ্গ খেলোয়াড় ও সাপোর্ট স্টাফ ছিলেন যারা মুভমেন্টকে সাপোর্ট করেছিলেন। কিছু শ্বেতাঙ্গ খেলোয়ার মুষ্টিবদ্ধ হাত ছড়িয়ে দেয়, আবার কিছু খেলোয়াড় দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ জ্ঞাপন করেন। কিন্তু কুইন্টন ডিকক কোনও ভাবেই এই আন্দোলনকে সমর্থন করেননি এবং প্রতিবাদের কোনও পদ্ধতি অবলম্বন করেননি।

বিতর্ক সরিয়ে প্রথম জয়

তবে বিতর্কের আঁচ অবশ্য এদিন ম্যাচে পড়েনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৮ উইকেটে হারিয়ে প্রথম জয় হাসিল করে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথমে ব্যাট করে ১৪৩ রান করে। দক্ষিণ আফ্রিকার এনরিক নর্জে দুর্দান্ত বল করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রানকে আটকে রাখতে সাহায্য করে। জবাবে এইডেন মার্করামের ২৬ বলে ৫১ রানের বিস্ফোরক ইনিংসে ভর করে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের রান তুলে নেয় আফ্রিকার দলটি। তৃতীয় উইকেটে তিনি এবং ভ্যান ডার ডাসেন, তাঁরা দুজনে ৮৩ রান তোলেন।

 

 
; ; ;