scorecardresearch
 

South Africa vs India: DRS বিতর্ক কেপটাউনে, স্টাম্প মাইকেই ক্ষোভ উগরে দিলেন বিরাট ও সতীর্থরা

ডিআরএস-এ দেখা যায় বল পিচ করা বা ইম্প্যাক্ট সবটাই লাইনেই হয়েছে। বল ট্র্যাকিংয়ের সময় দেখা যায় বল নাকি উইকেটের উপর দিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছে। অশ্বিনের বল যে জায়গায় পড়েছে এবং প্যাডের ঠিক যে জায়গায় লেগেছে তাতে উইকেটে লাগার আগে অতটা বাউন্স করার কথা নয়। এই দৃশ্য দেখে শুধু ভারতীয় ক্রিকেটাররা নয়, অবাক হন আম্পায়ার এরাসমাসও। তাঁকেও বলতে শোনা যায়, ''এ অসম্ভব''।

হতাশ বিরাট ও সতীর্থরা হতাশ বিরাট ও সতীর্থরা
হাইলাইটস
  • মেজাজ হারালেন কোহলি, রাহুল, অশ্বিনরা
  • অবাক আম্পায়ারও

বৃহস্পতিবার তৃতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে ফের ডিআরএস(DRS) নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেল। কেপটাউনের সুপার স্পোর্টস পার্কে যে ভাবে বাঁচলেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ডিন এলগার তাতে মেজাজ হারালেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি (Virat Kohli)। ডিআরএস নিয়ে এর আগেও অনেক বিতর্ক হয়েছে। তবে বিরাট যে ভাবে গোটা ঘটনায় প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন তা নজিরবিহীন। এ ভাবে কোনও দলকে মাঠের মধ্যেই নিজেদের ক্ষোভ প্রকাশ করেনি। 
কি বললেন কোহলি ও সতীর্থরা
রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে এলবিডব্লিউ হন ডিন এলগার (Dean Elgar)। আউট দেন আম্পায়ার এরাসমাসও তবে ডিআরএস নেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক। থার্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে নট আউট হন এলগার। এই ঘটনার পরে মাঠের মধ্যেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা। ভারত অধিনায়ক সম্প্রচারকারী সংস্থার দিকে আঙুল তুলে স্টাম্প মাইকের সামনে মুখ নিয়ে এসে বলেন, ''তোমাদের দল যখন বল পালিশ করে, তখন তাদের দিকে ক্যামেরা তাক করো। শুধু বিপক্ষ খেলোয়াড়দের উপর নয়।'' যেতে যেতেও বিরাট বলতে থাকেন, ''সম্প্রচারকারীরা এ ভাবেই টাকা উপার্জন করে। ওয়েল ডান ডিআরএস।''  এরপর অশ্বিন বলেন, ''সুপারস্পোর্টে জেতার জন্য আরও ভাল কোনও উপায় খুঁজে বের করা উচিত ছিল।'' থেমে ছিলেন না সহ-অধিনায়ক লোকেশ রাহুলও। তিনি বলেন, ''সারা দেশ আজ আমাদের এগারো জনের বিরুদ্ধে খেলছে।'' 


ডিআরএস নিয়ে ফের বিতর্ক
ডিআরএস-এ দেখা যায় বল পিচ করা বা ইম্প্যাক্ট সবটাই লাইনেই হয়েছে। বল ট্র্যাকিংয়ের সময় দেখা যায় বল নাকি উইকেটের উপর দিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছে। অশ্বিনের বল যে জায়গায় পড়েছে এবং প্যাডের ঠিক যে জায়গায় লেগেছে তাতে উইকেটে লাগার আগে অতটা বাউন্স করার কথা নয়। এই দৃশ্য দেখে শুধু ভারতীয় ক্রিকেটাররা নয়, অবাক হন আম্পায়ার এরাসমাসও। তাঁকেও বলতে শোনা যায়, ''এ অসম্ভব''। 
বিরাটের পাশে বোলিং কোচ
বিরাটকে সমর্থন করেছেন ভারতের বোলিং কোচ পরশ মামরে। ম্যাচের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ''প্রত্যেকেই মাঠে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করতে থাকে। এমন পরিস্থিতিতে অনেকেই অনেক কিছু বলে ফেলে। তবে এটা মেনে নিয়েই এগিয়ে যেতে হবে।'' 
শেষ পর্যন্ত আউট এলগার
যদিও দিনের শেষ বলে আউট হয়েছেন এলগার। ১৬ রান করে মহম্মদ শামির বলে রাহুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক। দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে তাঁর অপরাজিত ৯৭ রানের ইনিংসে ভর করেই সিরিজে সমতা ফিরিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তাই ডিন এলগারকে দ্রুত আউট করাই লক্ষ্য ছিল ভারতীয়দের। সেই কারনেই অশ্বিনের বলে আউট না হওয়ায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন ভারতের ক্রিকেটাররা।