scorecardresearch
 

New Electric Tow Wheeler In India : ঘণ্টায় দেড়শো কিমি! এটিই বিশ্বের দ্রুততম ইলেক্ট্রিক বাইক, দাম কেমন?

সংস্থা জানাচ্ছে, এই বাইকটির সমস্ত ভেরিয়েন্ট এবং ফিচার্সই আলাদা। এর টপ ভেরিয়েন্টে রয়েছে ১০.৫ kWh ব্যাটারি, যা দেয় ৩০৭ কিলোমিটার পর্যন্ত রাইডিং রেঞ্জ। সংস্থার দাবি, এটিই দেশের সবচেয়ে দ্রুতগতি সম্পন্ন ইলেক্ট্রিক বাইক। এর সর্বোচ্চ গতি ১৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা। সংস্থা এটিতে ফিউচারিস্টিক ডিজাইন দিয়েছে। দুটি চাকাতেই দেওয়া হয়েছে ডিস্ক। তাছাড়াও LED হেডলাইট, টেলল্যাপ ও ডে টাইম রানিং লাইটস (DRL's) বাইকটির সৌন্দর্য আরও বাড়িয়ে তুলেছে। 

নয়া ইলেকট্রিক টু-হুইলার নয়া ইলেকট্রিক টু-হুইলার
হাইলাইটস
  • ইলেক্ট্রিক বাইকের চাহিদা বাড়ছে
  • এল নয়া ইলেক্ট্রিক টু-হুইলার
  • জানুন দাম ও ফিচার্স

দেশের ইলেক্ট্রিক টু-হুইলারের (Electric Two Wheeler) বাজারে সামিল আরও এক সদস্য। বৃহস্পতিবার নয়া বাইক Ultraviolette F77 লঞ্চ করল বেঙ্গালুরুর সংস্থা Ultraviolette Automotive Pvt Ltd। আকর্ষণীয় লুকের এই বাইকটি তিনটি বিকল্প এবং দুটি ভেরিয়েন্টে লঞ্চ করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই সরকারিভাবে শুরু হয়েছে বুকিং। বাইকের প্রাথমিক দাম করা হয়েছে ৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। তবে ১০ হাজার টাকা দিয়ে বুকিং করা যাবে বাইকটি। 

সংস্থা জানাচ্ছে, এই বাইকটির সমস্ত ভেরিয়েন্ট এবং ফিচার্সই আলাদা। এর টপ ভেরিয়েন্টে রয়েছে ১০.৫ kWh ব্যাটারি, যা দেয় ৩০৭ কিলোমিটার পর্যন্ত রাইডিং রেঞ্জ। সংস্থার দাবি, এটিই দেশের সবচেয়ে দ্রুতগতি সম্পন্ন ইলেক্ট্রিক বাইক। এর সর্বোচ্চ গতি ১৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা। সংস্থা এটিতে ফিউচারিস্টিক ডিজাইন দিয়েছে। দুটি চাকাতেই দেওয়া হয়েছে ডিস্ক। তাছাড়াও LED হেডলাইট, টেলল্যাপ ও ডে টাইম রানিং লাইটস (DRL's) বাইকটির সৌন্দর্য আরও বাড়িয়ে তুলেছে। 

ভেরিয়েন্ট        দাম
F77 Original     ৩.৮ লক্ষ টাকা
F77 Recon       ৪.৫৫ লক্ষ টাকা

স্পেশাল এডিশানও হবে
সংস্থার তরফে এই বাইকটির স্পেশাল এডিশানের কথাও ঘোষণা করা হয়েছে। সেটির মাত্র ৭৭ ইউনিট তৈরি করা হবে। স্পেশাল এডিশানটিকে বিশেষ করে তোলার জন্য সেটি ইউনিক সংখ্যা ও রঙে সাজিয়ে তোলা হবে। এটি মাত্র ৭.৮ সেকেন্ডে শূন্য থেকে ১০০ কিলোমিটার প্রতিঘণ্টা পর্যন্ত গতি তুলতে পারে। আর এর সর্বোচ্চ গতি ঘণ্টায় ১৫২ কিলোমিটার। 

বাইকগুলি দু'ধরনের ব্যাটারি প্যাকে আনা হয়েছে। দুটি ব্যাটারি প্যাকেই ৮ বছর কিংবা ১ লক্ষ কিলোমিটারের ওয়ারেন্টি দিচ্ছে সংস্থা। রয়েছে ফাস্ট চার্জিংয়ের সুবিধাও। তাতে ১ ঘণ্টা চার্জ দিয়ে ৩৫ কিলোমিটার চালানো যাবে। এছাড়া রয়েছে বুস্ট চার্জারের বিকল্পও। তাতে ১ ঘণ্টা চার্জ দিয়ে ৭৫ কিলোমিটার পর্যন্ত চালানো যাবে। সংস্থার দাবি যাঁরা ঝাঁ চকচকে ইলেক্ট্রিক বাইকের (Electric Bike) খোঁজ করছেন, তাঁদের নয়া এই মডেলটি পছন্দ হবে। 

 

 
; ; ;