scorecardresearch
 
উত্তরবঙ্গ

পুজোর বাকি ৩৫ দিন, দুর্গা বানাতে কেউ ডাকলোই না মৃৎশিল্পীদের, পুজোর কি হবে !

দুর্গা প্রতিমার বরাত নেই
  • 1/7

বাবা - ঠাকুরদার হাত ধরেই প্রতিমা তৈরীর কাজ শিখেছিলেন ওঁরা। বংশপরম্পরায় বিভিন্ন ধরনের দেবী মূর্তি তৈরি করে চলেন মালদার কুমোরটুলির অনেক মৃৎশিল্পীদের পরিবার। কিন্তু এই প্রথম করোনার জেরে মালদার প্রায় অনেক মৃৎশিল্পীরা দুর্গা প্রতিমা তৈরির বরাত পায়নি । যদিও দুর্গাপুজোর বাকি আর মাত্র ৩৫ দিন।

দুর্গা প্রতিমার বরাত নেই
  • 2/7

এখনও পর্যন্ত মালদা শহরের কুমারটুলি এলাকার অনেক মৃৎশিল্পীরা প্রতিমা তৈরির বরাত না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন। যদিও তারা এই মুহূর্তে বিশ্বকর্মা, গণেশ, লক্ষী, মনসা প্রতিমা তৈরি করেছেন ঠিকই। কিন্তু দুর্গা প্রতিমা তৈরির বরাত যে এ বছর পাবেন না, তা ভেবেই কুল করতে পারছেন না মালদা শহরের বেশ কিছু মৃৎশিল্পীরা।

দুর্গা প্রতিমার বরাত নেই
  • 3/7

তাঁদের বক্তব্য, করোনা মহামারির জেরে এই বছর পুজোর ধুমধাম ভাবে করার কোন উদ্যোগ নেই অধিকাংশ ক্লাব কর্তাদের। যদিও বা কেউ দুর্গা প্রতিমার বরাত নিয়ে আসছেন। কিন্তু ক্লাব কর্তাদের বাজেট কম হওয়ায় প্রতিমা তৈরি করার বায়না নেওয়া যাচ্ছে না। তবুও যদি দুর্গা প্রতিমা তৈরির বরাত পাওয়া যায়, সেই আশাতেই রয়েছেন মালদা শহরের বেশ কিছু মৃৎশিল্পীরা।

দুর্গা প্রতিমার বরাত নেই
  • 4/7

উল্লেখ্য, মালদা শহরের জুবিলি রোড , আন্ধারুপাড়া , পাকুড়তলি, ফুলবাড়ি , বালুর চর সহ একাধিক এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে মৃৎশিল্পীদের কারখানা। কিন্তু এসব এলাকার অধিকাংশ মৃৎশিল্পীরা এখনো পর্যন্ত দুর্গা প্রতিমা তৈরির বরাত পাননি বলে জানিয়েছেন। কেউ কেউ বায়না পেয়েছেন কয়েকটি দুর্গা প্রতিমার।

দুর্গা প্রতিমার বরাত নেই
  • 5/7

কিন্তু সেইসব মৃৎশিল্পীরা দুর্গা প্রতিমা তৈরি করার ক্ষেত্রে নিজেদের পরিবারের লোকেদের এই কাজে যুক্ত করেছেন । কারণ, করোনা মহামারির মধ্যে শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন অনেক মৃৎশিল্পীরা। তার ওপর প্রতিমা তৈরি নানা উপকরণের দাম একধাপে অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে । তাই যতটা পারছেন বাড়ির পুরুষ এবং মহিলা সদস্যদের নিয়ে দেবীমূর্তি তৈরির কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন মৃৎশিল্পীদের অনেকেই।

দুর্গা প্রতিমার বরাত নেই
  • 6/7

মালদা শহরের বাঁধরোড এলাকার মৃৎশিল্পী স্বপন পন্ডিত , চন্দন পন্ডিত বলেন, গত বছর করোনা সংক্রমণ থাকলেও বেশ কিছু দুর্গা প্রতিমা তৈরির বরাত পেয়েছিলাম। কিন্তু এ বছর এখনও পর্যন্ত একটি ক্লাবের দুর্গা প্রতিমা তৈরির বায়না পায়নি। কয়েকটি বিশ্বকর্মা, গণেশ মূর্তি তৈরির অর্ডার পেয়েছি । কিন্তু বেশ কিছু ক্লাব কর্তারা এবারের  ছোটখাটো করে পুজো সারতে চাইছেন। কোনও কোনও ক্লাব কর্তারা দুর্গা প্রতিমা অর্ডার নিয়ে আসছেন ঠিকই। কিন্তু ওদের কম বাজেটের জন্য প্রতিমা তৈরির বরাত দিতে পারছি না ।

 

দুর্গা প্রতিমার বরাত নেই
  • 7/7

গত বছর প্রতিমা তৈরির যা দাম ছিল, তার অর্ধেক দাম কমিয়ে দিয়েছেন বিভিন্ন পুজো উদ্যোক্তারা। যার ফলে লোকসানের মুখে পড়ে দেবী প্রতিমা বানানো  সম্ভব হচ্ছে না। করণা মহামারির জেরে এখন মৃৎশিল্পীরা চরম সংকটের মধ্যে পড়েছেন। তাই এই অবস্থায় যাতে সরকার সহযোগিতা করে, তার কথাও জানিয়েছেন অনেক মৃৎশিল্পীদের পরিবার।

 
; ; ;