scorecardresearch
 
উত্তরবঙ্গ

বিদ্যুৎ বিভ্রাটে পর্যটক পালাচ্ছে ডুয়ার্সে, অন্ধকারে চিলাপাতা

লোডশেডিংয়ে জেরবার চিলাপাতা
  • 1/6

কেরোসিন তেলের কুপি, মোমবাতি, আর হ্যারিকেনের আলই ভরসা চিলাপাতায় ঘুরতে আসা পর্যটকদের। সন্ধ্যা নামতেই গভীর অন্ধকারে ডুবে যাচ্ছে চিলাপাতা পর্যটন কেন্দ্র। ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের জেরে চিলাপাতা পর্যটন কেন্দ্র থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে পর্যটকরা। লো ভোল্টেজ এবং লোডশেডিংয়ে জেরবার পর্যটন কারবারিরা এই সমস্যার জেরে দারুণ দুশ্চিন্তায় পড়েছে। 

 

লোডশেডিংয়ে জেরবার চিলাপাতা
  • 2/6

সন্ধ্যা নামতেই পর্যটকদের ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে কেরোসিন তেলের কুপি, মোমবাতি, হ্যারিকেন। চিলাপাতা পর্যটন কেন্দ্রে বেড়াতে আসা পর্যটকদের বাড়তি পাওনা বন্ধ ঘরের ভ্যাপসা গরম আর মশার কামড়। সেই সাথে ঘন জঙ্গলে ঢাকা চিলাপাতায় বেড়াতে এসে পর্যটকদের ভয়ে ভয়ে থাকতে হচ্ছে বিষাক্ত সাপের কামড় থেকে নিজেদের বাঁচিয়ে রাখতে ।

লোডশেডিংয়ে জেরবার চিলাপাতা
  • 3/6

লো-ভোল্টেজ ও লোডশেডিং সমস্যার জন্য পর্যটকরাও নির্দিষ্ট দিনের আগেই চিলাপাতা বনাঞ্চল ছেড়ে চলে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ট্যূর অপারেটর সংস্থাগুলির আশঙ্কা, স্থানীয় পর্যটন নিয়ে এই ঘটনায় বাইরের পর্যটক মহলে খারাপ বার্তা যাচ্ছে। সপ্তাহ জুড়ে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের পর্যটন সার্কিট চিলাপাতায় বিদ্যুতের এই সমস্যা চলছে। বন্টন কোম্পানী অবশ্য সমস্যা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে।

লোডশেডিংয়ে জেরবার চিলাপাতা
  • 4/6

বিদ্যুৎ বন্টন কোম্পানির আলিপুরদুয়ারের রিজিওনাল ম্যানেজার বিদিতরঞ্জন বর্মন বলেন, চিলাপাতায় লো ভোল্টেজ বা লোডশেডিং সমস্যার বিষয়টি আমাদের জানা নেই। লজ মালিকরা বিষয়টি লিখিতভাবে জানালে খতিয়ে দেখা হবে। তবুও খোঁজ নিচ্ছি কোথায় সমস্যা হচ্ছে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতির জেরে বিশ্বজুড়ে পর্যটন  ব্যবস্থায় অর্থনৈতিক মন্দা চলেছে। পশ্চিমবঙ্গও তার ব্যতিক্রম নয়।

লোডশেডিংয়ে জেরবার চিলাপাতা
  • 5/6

করোনা সংক্রমণের গ্রাফ নিম্নমুখী হওয়ায় এখন কিছু কিছু পর্যটক চিলাপাতায় বেড়াতে আসছে। ঘুরে দাঁড়াচ্ছে পর্যটন ব্যবসা। সেই সময় লো ভোল্টেজ ও লোডশেডিংয়ের জেরে পর্যটকদের নির্দিষ্ঠ দিনের আগেই চিলাপাতা ছাড়ার হিড়িক পড়ায় পর্যটক মহলে খারাপ বার্তা যাচ্ছে বলে পর্যটন ব্যবসায়ীদের মধ্যে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। চিলাপাতার আন্দু বস্তি, কুরমাই বস্তি, শিমলাবাড়ি, উত্তর চকোয়াক্ষেতি, মেন্দাবাড়ি ও কোদালবস্তি এলাকায় ৩০টির মতো লজ ও হোমস্টে আছে। চিলাপাতা বনাঞ্চলের স্থানীয় বাসিন্দারা পুরোপুরি পর্যটন ব্যবসার উপর নির্ভরশীল।স্থানীয় পর্যটন মালিকদের অভিযোগ, সপ্তাহ জুড়ে লো ভোল্টেজ ও লোডশেডিংয়ের সমস্যার জেরে তাঁদের ব্যবসা লাটে উঠার অবস্থা হয়েছে। যখন তখন বিদ্যুৎ চলে যাচ্ছে। একবার বিদ্যুৎ চলে গেলে সহজে আর আসে না। লো ভোল্টেজ সমস্যাতেও তাঁদের ব্যবসার ক্ষতি হচ্ছে।

 

লোডশেডিংয়ে জেরবার চিলাপাতা
  • 6/6

চিলাপাতা জিপসি ইউনিয়নের সভাপতি বিমল রাভা বলেন, করোনার জেরে পর্যটক কম আসছে। লজে বা হোমস্টেতে পর্যটক ঠাসা থাকলে জেনারেটর চালানো যায়। কিন্তু লো ভোল্টেজ বা লোডশেডিংয়ে দু’তিন জন পর্যটকের জন্য জেনারেটর চালানো যায় না। তাতে ক্ষতির পরিমান আরও বেড়ে যায়। চিলাপাতা ইকো টুরিজম সোসাইটির এক কর্তা অভীক গুপ্ত বলেন, লো ভোল্টেজ ও লোডশেডিংয়ের জন্য পর্যটকরা নির্দিষ্ঠ দিনের আগেই লজ বা হোমস্টে ছাড়ছেন। ফলে আমরা আরও বিপোকে পড়েছি।অভিক গুপ্ত বলেন বিদ্যুৎ বন্টন কোম্পানি দ্রুত এই সমস্যার সমাধান না করলে চিলাপাতার পর্যটন শিল্পে অপূরনীয় ক্ষতি হবে।আমরা চাই দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করা হোক।

 
; ; ;