scorecardresearch
 

এক মাস ভুগিয়ে খাঁচাবন্দি মাদারিহাটের ছাগলচোর চিতাবাঘ

শনিবার রাতে মাদারিহাটের বীরপাড়া থানা এলাকার অধীন গোপালপুর চা বাগান সংলগ্ন মোহনপুর গ্রামে বন দপ্তর খাঁচা পেতে চিতাবাঘটিকে ধরে। এক মাস ধরে ছাগল-মুরগি চুরি করার পর স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে এলাকাবাসী।

খাঁচায় বন্দি চিতাবাঘ খাঁচায় বন্দি চিতাবাঘ
হাইলাইটস
  • এক মাস ধরে ছাগল-মুরগি চুরি করছিল চিতাটি
  • চোর মনে করে রাত পাহারাও দেয় এলাকাবাসীরা
  • অবশেষে ছাগলের টোপে ধরা দিল চিতা

হাঁস মুরগি চোর কে?

লকডাউনে গ্রাম থেকে ধারাবাহিক ভাবে চুরি হচ্ছিল গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগি। একে রুজি রোজগার নেই, তার উপর খামারের পশু-পাখি গায়েব হয়ে যাচ্ছে পরপর। কার মাথার ঠিক থাকে! চোর খুঁজতে গিয়ে গ্রামের অভাবী পরিবারগুলোকে সন্দেহের চোখে দেখতে শুরু করেছিলেন গ্রামের মানুষ। রাত জেগে, পাহারা দিয়েও ধরা পড়েনি চোর। পুলিশে অভিযোগ করার কথাও ভাবছিলেন তাঁরা।

এ চোর ধরা পুলিশের কম্ম নয়

কিন্তু তাঁরা কস্মিনকালেও ভাবতে পারেননি, এ চোর ধরা পুলিশের কম্ম নয়। কারণ এত বড় চোর ধরার প্রশিক্ষণ তাঁরা পাননি কখনও। তাঁদের কাজ কারবার দু-পেয়ে চোর-ডাকাত নিয়ে। তাই চারপেয়ে চোর যদি রাডারে ধরাও পড়ে, তাঁরা করবেন টা কী! অবশেষে দ্বারস্থ হতে হল এই বিশেষ ধরণের চোর ধরার বিশারদ, বন দফতরের।

অবশেষে ধরা পড়ল চোর

শেষমেষ বনদপ্তরের সহযোগিতায় হাতে নাতে ধরা পড়ল ছাগল-মুরগি চোর। ছাগলের টোপেই বনদপ্তরের ফাঁদে ধরা পরলো ধূর্ত চিতা বাঘ। স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে বাঁচলেন এলাকাবাসী।

এক মাসের দৌরাত্ম্যের অবসান

গত এক মাস ধরেই গোপালপুর চা বাগানের পাশেই মোহনপুর গ্রামে স্থানীয় এলাকা থেকে মাঝে মধ্যেই উধাও হয়ে যাচ্ছিল গরু, ছাগল, মুরগি।কিন্তু চোর কে, তা ধরতে পারছিলেন না গ্রামের মানুষ। একটা সময় ছাগল, মুরগি চুরিকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌছায় যে গ্রামের মানুষ একে অপরকে সন্দেহের নজরে দেখতে শুরু করে। গ্রামে ছাগল, মুরগি চুরি রুখতে শুরু হয় নৈশ পাহারা। ঠিক হয় গ্রামের যুবকরা পালা করে রাত পাহারা দেবেন। পাহারা চলাকালীন গ্রাম থেকে উধাও হতে থাকে ছাগল, মুরগি। ধূর্ত চোরের হদিশ পাচ্ছিল না পাহারাদাররা। তবে গ্রামের মেঠো পথে বড়, বড় পায়ের থাবা দেখে সন্দেহ হয় গ্রামের মানুষের। তারা জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান কর্তৃপক্ষের দারস্থ হয়।

এলাকাবাসীর আবেদনে পাতা হয় খাঁচা, ছাগলের টোপ

শনিবার রাতে মাদারিহাটের বীরপাড়া থানা এলাকার অধীন গোপালপুর চা বাগান সংলগ্ন মোহনপুর গ্রামে বন দপ্তর খাঁচা পাতে। বন দপ্তরের সেই খাঁচায় ছাগলের টোপ দেয়। ভোর রাতে ছাগলের লোভে সেই খাঁচায় প্রবেশ করে চিতা বাঘটি। এরপরই খাঁচায় ধরা পড়ে সেই পূর্নবয়স্ক চিতাবাঘ।

চিতাটিকে গভীর জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে

জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের সহকারী বন্যপ্রাণী সহায়ক দেবদর্শন রায় জানান, আটক চিতাবাঘটিকে রবিবার জাতীয় উদ্যানে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।