scorecardresearch
 

কামতাপুর ছাড়া অন্য কোনও রাজ্য নয়, ফের আসরে কেপিপি

বিজেপির তরফে পৃথ উত্তরক উত্তরবঙ্গের দাবি উঠতেই আসরে নেমেছে অন্য বিচ্ছিন্নতাবাদী দলগুলি। দীর্ঘদিন চুপ থাকার পর পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে সরব হয়েছিল বিমলপন্থী গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। এত দিন জল মাপছিল কেপিপি। তারাও এদিন পৃথক কামতাপুরের দাবি তুলে দিল।

সাংবাদিকদের মুখোমুখি কেপিপি সাংবাদিকদের মুখোমুখি কেপিপি
হাইলাইটস
  • পৃথক কামতাপুর ছাড়া অন্য কোনও রাজ্যের দাবি নয়
  • অতুলের জায়গায় সভানেত্রী হলেন স্ত্রী মেনকাদেবী
  • বিজেপিকে বিশ্বাস করবেন না, আহ্বান রাজবংশিদের

এবার কামতাপুরের দাবি

বিজেপি নেতাদের পৃথক উত্তরবঙ্গের দাবি নস্য়াৎ করে দিয়ে কদিন আগেই গোর্খাল্যান্ডের দাবি তুলে সরব হয়েছিলেন বিমলপন্থী মোর্চা নেতা রোশন গিরি। এবার সুযোগ বুঝে পৃথক কামতাপুর রাজ্যের দাবি তুলে দিল কামতাপুর পিপলস পার্টি।

অতুলের জায়গায় তাঁর স্ত্রী হলেন সভানেত্রী

শনিবার শিলিগুড়ি জার্নালিস্ট ক্লাবে সাংবাদিক বৈঠক করে পৃথক রাজ্য নিয়ে বিজেপির পাতা ফাঁদে কেউ পা দেবেন না। তবে কামতাপুর রাজ্য গঠিত হলে সেটা দাবিকে সমর্থন করা হবে। এমনটাই জানালেন কামতাপুর প্রগ্রেসিভ পার্টির সহ-সভাপতি বুধারু রায়। একইসাথে কামতাপুর প্রগ্রেসিভ পার্টির সভাপতি হিসেবে প্রয়াত অতুল রায়ের স্ত্রী মেনকা রায়ের নাম ঘোষণা করা হল কেপিপি তরফে।

উত্তরবঙ্গবাসীর ভাবাবেগে আঘাত নয়

উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্য কিংবা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের দাবিতে সরব হয়েছেন বিজেপির বেশ কয়েকজন সাংসদ ও বিধায়করা। তবে উত্তরবঙ্গকে পৃথক কামতাপুর রাজ্য ঘোষণা করার দাবিকে দীর্ঘদিন থেকেই তুলে আসছে কামতাপুর প্রোগ্রেসিভ পার্টি। তবে বিজেপির তোলা এই দাবিতে তাদের সমর্থন থাকবে কি না, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠছিল। অবশেষে শনিবার বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানালেও নিজেদের পুরনো অ্য়াজেন্ডা পৃথক কামতাপুর রাজ্যের দাবি তুলে দিলেন কেপিপি। দলের তরফে বলা হয় উত্তরবঙ্গবাসীর ভাবাবেগকে আঘাত করে আলাদা রাজ্যের পক্ষে নেই কামতাপুর কংগ্রেসের প্রার্থী।

কামতাপুর ছাড়া আর কোনও পৃথক রাজ্যের দাবিকে সমর্থন নয়

তবে কামতাপুর নামে আলাদা রাজ্য হলেই তবে সেই দাবিকে সমর্থন করা হবে। শনিবার শিলিগুড়িতেসাংবাদিক বৈঠক করে এমনটাই জানালেন কামতাপুর প্রোগ্রেসিভ পার্টির সহ-সভাপতি বুধারু রায়। অন্যদিকে সম্প্রতি কিছুদিন আগে করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন দলের সভাপতি অতুল রায়। এরপর থেকেই অতুল রায়ের জায়গায় কাকে বসানো হবে তা নিয়ে জোর জল্পনা ছিল। অবশেষে এদিন কেপিপির পক্ষ থেকে দলের সভানেত্রী হিসেবে প্রয়াত অতুলবাবুর স্ত্রী মেনকা রায়ের নাম ঘোষণা করা হয়।

বামেরা ফাঁসিয়েছিল, তৃণমূল বাঁচিয়েছে

পাশাপাশি অতুল রায়ের পুত্র অমিত রায়কে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য করা হয়েছে বলেও জানান দল। এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তারা জানায়, ৩৪ বছরের বাম সরকারের আমলে কামতাপুরদের জন্য কোনও উন্নয়নের কাজ হয়নি। উল্টে আন্দোলন করায় তাদের অনেকের বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার কামতাপুরিদের জন্য পৃথক কামতপুর ভাষা অ্যাকাডেমি এবং কামতাপুরি ভাষাকে স্বীকৃতি দিয়েছে। সেই কারণে তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দল।

রাজবংশী ও কামতাপুরিতের মন পেতে আলাদা রাজ্য চাইছে বিজেপি

এদিন সংবাদমাধ্যমের প্রশ্ন উত্তরে দলের সহ-সভাপতি বুধারু রায় বলেন, বিজেপি নেতারা আগে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করুক। আলাদা রাজ্য নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বিমত রয়েছে। উত্তরবঙ্গবাসীদের ভাবাবেগে আঘাত করে আমরা আলাদা রাজ্য চাই না। কামতাপুর নামে আলাদা রাজ্য হলে তবেই আমরা সেই দাবিকে সমর্থন করবো। তবে বিজেপি যা করছে কামতাপুরি এবং রাজবংশিদের সমর্থন পেতে এই কাজ করেছে। উত্তরবঙ্গের মানুষের কাছে আমাদের আবেদন বিজেপির এই ফাঁদে কেউ যাতে পা না দেয়।