scorecardresearch
 

নিজেদের ক্ষমতা নেই, কলকাতা পুরভোটে অন্য দলকে সমর্থন করবে বামেরা

রাজ্যে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার ১০ বছরের মধ্যে সব আসনে প্রার্থী দেওয়ার ক্ষমতা হারিয়েছে বামেরা। নিজেদের একক ক্ষমতায় কলকাতা পুর নির্বাচনে সব আসনে প্রার্থী দিতে পারেনি বামেরা।

এনজেপি স্টেশনে সূর্যকান্ত মিশ্র এনজেপি স্টেশনে সূর্যকান্ত মিশ্র
হাইলাইটস
  • ২৭ আসনে প্রার্থী নেই বামেদের
  • অন্য দলকে সমর্থন দেবে তারা
  • বিজেপি-তৃণমূল বিরোধিতায় অটল

কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে তৃণমূল ও বিজেপিকে আটকাতে বামেদের ভরসা বিরোধী দলের হাতই। তাই কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে যে সমস্ত ওয়ার্ডে বামেরা প্রার্থী দেয়নি সেখানে তৃণমূল ও বিজেপি বিরোধী দলকে সমর্থন জানাবে বামেরা। শনিবার শিলিগুড়িতে দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে এসে এমনই মন্তব্য করলেন সিপিআইএম এর রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র।

বামেদের বিড়ম্বনা

বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে খাতা খুলতে পারেনি বামেরা। তা সত্ত্বেও পুরসভা ভোটকে হাতিয়ার করে ফের নিজেদের হারানো জমি ফিরে পেতে চাইছে বামেরা। কলকাতা পুরসভার নির্বাচনের নির্ঘন্ট প্রকাশ হতেই ইতিমধ্যে তৃণমূল প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার পর বামেরাও নিজেদের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছে।

১৪৪ আসনের ২৭চিতে প্রার্থী নেই বামেদের

১৪৪ আসনের কলকাতা পুরসভার ২৭ টি আসনে প্রার্থী দেয়নি বামেরা। অন্যদিকে ২০ টি আসনে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হয়নি। তবে জানা গিয়েছে যে আসনগুলিতে বামেরা প্রার্থী দেয়নি সেখানে তাদের সাংগঠনিক দুর্বলতা রয়েছে । ফলে এই আসনগুলিতে বিজেপি তৃণমূল আটকাতে এর বিরোধী দলকে সমর্থন জানাবে বামফ্রন্ট। 

জোটকে ঘুরিয়ে ব্যবহারের চেষ্টা

প্রসঙ্গত বিধানসভা নির্বাচনে যুব সংগঠনকে সামনে রেখে দলকে মাথা তুলে দাঁড়াতে চেয়েছিল বামেরা। তবে সেখানে নতুন প্রজন্মের প্রার্থীদের ভোট বেশিরভাগ আসনে বাড়লেও আশানুরূপ ফল তো দূরের কথা রাজ্যে খাতা খুলতে পারেনি বামেরা। যদিও পরবর্তীতে দলের অন্দরে আলোচনায় জোট নিয়েও প্রশ্ন উঠেছিল। তাই এবার আসন্ন কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে জোটে না গিয়ে আসন সমঝোতায় এগোতে চাইছে বামেরা।

সূর্যকান্ত কি বললেন ?

শনিবার সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, কলকাতা পুরসভায় যেখানে আমাদের শক্তি রয়েছে, প্রার্থী দিয়েছি। যেখানে দেওয়া হয়নি সেখানে তৃণমূল-বিজেপিকে আটকাতে সক্ষম এমন বিশ্বাসযোগ্য দলকে সমর্থন জানাবে বামেরা। তবে সেই ক্ষেত্রে যদি কেউ প্রার্থী না দেয় পরবর্তীতে দেখা যাবে। তবে এই জন্য কতদিন অপেক্ষা করবে তা স্পষ্ট করেননি তিনি। অন্যদিকে তিনি আরও বলেন, পৌরসভা নির্বাচনের জন্য বামেরাই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল। একইভাবে শিলিগুড়ি পুরনিগমের ও মহাকুমা পরিষদের নির্বাচনের জন্য বামেরাই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে।