scorecardresearch
 

ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি? কৃষি আন্দোলন দানা বাঁধছে নকশালবাড়িতে

গোর্খা ব্যাটেলিয়নের ট্রেনিং সেন্টার তৈরিকে ঘিরে নতুন করে নকশালবাড়িতে আন্দোলনে আঁচ, বিক্ষোভ কৃষকদের

বিক্ষোভ মিছিল বিক্ষোভ মিছিল
হাইলাইটস
  • জেলাশাসকের দ্বারস্থ কৃষিজীবীরা, পাশে বামফ্রন্ট
  • কৃষিজমিতে প্রকল্প করতে বাধা
  • অন্য জায়গায় প্রকল্প করতে প্রস্তাব

নকশালবাড়ি নিয়ে উত্তাপ বাড়ছে

গোর্খা ব্যাটেলিয়নের ট্রেনিং সেন্টার তৈরিকে ঘিরে নতুন করে নকশালবাড়িতে আন্দোলনে আঁচ, বিক্ষোভ কৃষকদের

জেলাশাসকের দ্বারস্থ কৃষকরা

গোর্খা ব্যাটেলিয়নের ট্রেনিং সেন্টার তৈরির জন্য জমি অধিগ্রহণকে ঘিরে আবারও উত্তপ্ত হতে পারে শিলিগুড়ি মহকুমা নকশালবাড়ি এলাকার সূরজবর মৌজা এলাকা। স্থানীয় কৃষকদের দাবি উর্বর কৃষিজমি অধিগ্রহণ চলবে না। সূরজবর মৌজার কৃষিজমিতে ট্রেনিং সেন্টার করে কৃষকদের ভাতে মারা চলবে না। ইতিমধ্যে সরকারের তরফে জমি জরিপের কাজ শুরু হতেই বিক্ষোভ শুরু করেছে কৃষকেরা। বুধবার একই দাবিতে মহকুমা পরিষদে জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপি দিল সারা ভারত কৃষক সভা।

জমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে

শিলিগুড়ি মহকুমার নক্সালবাড়ি ব্লকের মনিরাম গ্রাম পঞ্চায়েতের সূরজবর মৌজা এলাকায় সাধারন কৃষকদের উর্বর কৃষি জমিতে রাজ্য সরকার গোর্খা ব্যাটেলিয়ান ট্রেনিং সেন্টার, পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করার কথা বলেছে ৷ সেখানে ১০৫ একর জমি গোর্খা ব্যাটেলিয়ন এর ট্রেনিং সেন্টার তৈরির জন্য ক্ষুদ্র কৃষকদের কাছ থেকে অধিগ্রহণ করার প্রক্রিয়া করা হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে জমি জরিপের কাজ।

জমি ছাড়তে নারাজ স্থানীয়রা

রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বিরোধিতায় নেমেছে ওই এলাকার কৃষক পরিবারগুলি। কৃষকদের দাবি, ওই এলাকায় কৃষি কাজ করে কৃষক পরিবারগুলি জীবন জীবিকা নির্বাহ করে। এই পরিস্থিতিতে তাদের জমি চলে গেলে দিশেহারা হয়ে যাবে পরিবারগুলো। কৃষকদের দাবি, নকশালবাড়ির মাটি, কৃষক আন্দোলনের মাটি। তাই সহজে তাঁরা ছাড়বেন না ৷ যদি তাঁদের দাবি সরকার না শোনে, তবে তাঁরা গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে বড় আন্দোলনে শামিল হবেন ৷ ভবিষ্যতে কৃষকদের সেই আন্দোলনে অন্যান্য কৃষক সংগঠনগুলোকেও সঙ্গে নেবে ৷

কৃষিজমিতে প্রকল্প নয়, অকৃষিজমি দেখুক সরকার

বুধবার রাজ্য সরকারের এই জমি অধিগ্রহণের গ্রহের প্রতিবাদে শিলিগুড়ির মহাকুমা পরিষদে দার্জিলিংয়ের জেলাশাসককে স্মারকলিপি দিল সারা ভারত কৃষক সভা। এদিন সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বাম কৃষক নেতা গৌতম ঘোষ বলেন, সূরজবর মৌজা এলাকায় প্রচুর অকৃষিজমি এমনি পড়ে রয়েছে। সেখানে এই পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার হোক । তবে কৃষি জমিতে এই ট্রেনিং সেন্টার হলে অনেক কৃষকদের জীবন-জীবিকায় প্রভাব পড়বে। জেলাশাসককে বিষয়টি নিয়ে জানানো হয়েছে। যদি সরকার বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ না করে আগামী দিনে আরও বৃহত্তর আন্দোলন হবে।

নকশালবাড়িতে আতঙ্ক

প্রসঙ্গত, নকশাল আন্দোলনকে কেন্দ্র করে নকশালবাড়ি থেকে এই আন্দোলনের সূচনা নিয়ে অতীতে অনেক ইতিহাস রয়েছে। আজও নকশাল আন্দোলন ইতিহাসের পাতায় উজ্জ্বল। তবে আবারও যেভাবে জমি অধিগ্রহণ নিয়ে কৃষক ও সরকারের মধ্যে অশান্তির বাতাবরণ তৈরি হচ্ছে তাতে আবারও নতুন করে জমিয়ে আন্দোলনকে ঘিরে নকশালবাড়ি উত্তপ্ত হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে অনেকে।