scorecardresearch
 

MLA সার্টিফিকেট নকল করে মোটা টাকায় বিক্রি, চাঞ্চল্য ক্যানিংয়ে

বিধায়কের সার্টিফিকেট নকল ও মোটা টাকায় বিক্রির অভিযোগে চাঞ্চল্য ক্যানিংয়ে। বিধায়ক পরেশ দাস নিজে অভিযোগ দায়ের করেছেন থানায়। তারপরই শুরু হয়েছে হইচই।

বিধায়ক পরেশরাম দাস বিধায়ক পরেশরাম দাস
হাইলাইটস
  • বিধায়কের সার্টিফিকেট নকলের অভিযোগ
  • মোটা টাকায় বিক্রির অভিযোগে
  • ব্যাপক চাঞ্চল্য ক্যানিংয়ে

বিধায়কের সার্টিফিকেট জাল ও মোটা টাকায় বিক্রির অভিযোগে ব্যাপক চাঞ্চল্য। এলাকায় এভাবে বহু জাল সার্টিফিকেট তৈরি হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে এলাকায় বলে জানা গিয়েছে। তারপরই সক্রিয় হয়ে উঠেছে।

ক্যানিংয়ের বিধায়কের খোদ অভিযোগ

অভিযোগ, ক্যানিং পশ্চিমের বিধায়ক পরেশরাম দাসের সার্টিফিকেট নকল করা ও সেই সার্টিফিকেট মোটা টাকায় বিক্রির অভিযোগ উঠেছে কয়েকজন দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার ঘুটিয়ারি শরিফ ফাঁড়িতে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন বিধায়ক। তিনি দোষীদের গ্রেফতার করে বিষয়টির নিষ্পত্তির দাবি জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে নিজের ইমেজ নষ্ট হচ্ছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

জাল ও বিক্রির অভিযোগ

বিধায়কের দাবি, বিধানসভার বিভিন্ন এলাকার মানুষের সুবিধার জন্য রেসিডেন্সিয়াল সার্টিফিকেট, এসসি, এসটি, ওবিসি, মেডিক্যাল সার্টিফিকেট বিধানসভার ১১ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেই দলীয় কার্যালয়ে রাখা থাকে। সেই সুযোগে তাঁর সেই সার্টিফিকেট ব্যবহার করে কিছু অসাধু মানুষ মোটা টাকায় সেই সার্টিফিকেট বিক্রি করছেন। বিশেষ করে বিক্রি হচ্ছে রেসিডেন্সিয়াল সার্টিফিকেট।

বাংলাদেশি নাগরিকদের বিক্রির অভিযোগ

আরও অভিযোগ, ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন বাংলাদেশিকে সেই সার্টিফিকেট বিক্রি করা হয়েছে বলে দাবি বিধায়কের। এই ঘটনায় যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি। পুলিশ সূত্রের খবর, এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আরজান শেখ নামে দক্ষিন মাখালতলার বাসিন্দা এক যুবককে ইতিমধ্যেই আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। ধৃতের কাছ থেকে বিধায়কের সই করা ব্ল্যাঙ্ক সার্টিফিকেট উদ্ধার করেছে পুলিশ। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ঘুঁটিয়ারি শরিফ ফাঁড়ির পুলিশ।

 

 
; ; ;