scorecardresearch
 
পশ্চিমবঙ্গ

ফের চালু বাংলা-সিকিম 'লাইফ লাইন' জাতীয় সড়ক, স্বস্তিতে পর্যটকরা

ফের চালু জাতীয় সড়ক
  • 1/7

প্রাকৃতিক বিপর্যয় কাটিয়ে ফের স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে গোটা পাহাড়। টানা ৭ দিন বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার সিকিমের লাইফলাইন ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে ফের চালু হল যান চলাচল। একইসঙ্গে টানা ৫ দিন বন্ধ থাকা পর ৫৫ নম্বর জাতীয় সড়কেও চালু হল একমুখী যানচলাচল। এর ফলে দুশ্চিন্তার মেঘ কাটল পর্যটন ব্যবসায়ীমহলে। ব্যবসায়ীদের আশা, কালীপুজোর মরুশুমে পর্যটকদের ঢল নামবে পাহাড়ে।
 

প্রতীকী ছবি
  • 2/7

করোনার জেরে এমনিতেই প্রভাব পড়েছে উত্তরবঙ্গের পর্যটন শিল্পে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব কিছুটা কমায় পুজোর আগে থেকে গোটা পাহাড়জুড়ে ঢল নেমেছিল পর্যটকদের। কিন্তু গত সপ্তাহে আচমকাই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে পাহাড়জুড়ে নামে অশনি সংকেত। দার্জিলিং ও কালিম্পং-এ একটানা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে জনজীবন। 

প্রতীকী ছবি
  • 3/7

টানা বৃষ্টি ও ধসে ক্ষতিগ্রস্ত হয় দার্জিলিং-র কার্শিয়াং মহকুমার মহানদীর কাছে শিলিগুড়ি থেকে দার্জিলিংগামী ৫৫ নম্বর জাতীয় সড়ক এবং শিলিগুড়ি থেকে সিকিম ও কালিম্পংগামী ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক। মূলত কালিম্পংয়ের ২৯ মাইল এবং বিরিকদাড়ায় ২টি ধসের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ওই জাতীয় সড়কগুলি। সিকিমের লাইফলাইন বলে পরিচিত ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়া সমস্যায় পরেন পাহাড়ে বেড়াতে যাওয়া পর্যটকরা। যদিও দার্জিলিং যাওয়ার বিকল্প পথ থাকলেও কালিম্পং হয়ে সিকিম যেতে বেশ বিপাকে পরতে হয় গাড়ি চালক ও যাত্রীদের। জাতীয় সড়ক বন্ধের কারণে পর্যটকদের সিকিম কিংবা কালিম্পং-এ যাওয়ার জন্য দার্জিলিং জেলার মিরিক ও লাভা হয়ে যেতে হচ্ছিল।

 

ফের চালু জাতীয় সড়ক 
  • 4/7

যার ফলে একদিকে যেমন বাড়তি গাড়ি ভাড়া লাগছিল, তেমনই সিকিম পৌঁছনোর জন্য সময় লাগছিল প্রায় দ্বিগুণ। এই পরিস্থিতিতে ওই দুই জাতীয় সড়ক তড়িঘড়ি মেরামত ও সংস্কারের কাজে নামে গ্রিফ, বর্ডার রোড অর্গানাইজেশন, জেলা প্রশাসন ও জিটিএ। তার মধ্যে খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাহাড় সফরে থাকায় আরও বেশি যুদ্ধকালীন তৎপরতায় শুরু হয় জাতীয় সড়ক সারাইয়ের কাজ।

প্রতীকী ছবি
  • 5/7

প্রথমে ৫৫ নম্বর জাতীয় সড়ক সারাই করে সেখানে একমুখী যান চলাচল শুরু হয়। এরপর যান চলাচল শুরু হয় ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়েও। যদিও ১০ নম্বর জাতীয় সড়কের ধসপ্রবণ এলাকায় যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে পুলিশ। তবে জাতীয় সড়ক খুলে যাওয়ায় কিছুটা স্বস্তিতে পর্যটন ব্যবসায়ীরা। 

ফের চালু জাতীয় সড়ক
  • 6/7

হিমালয়ান হসপিটালিটি ট্যুর এন্ড ট্রাভেলস ডেভলপমেন্ট নেটওয়ার্কের সম্পাদক সম্রাট সান্যাল বলেন, 'ধসের ফলে পর্যটন ব্যবসায়ী ও পর্যটকরা একটু বিচলিত হয়ে পড়েছিলেন। তবে আবার পর্যটকরা পাহারমুখী হচ্ছেন। যেভাবে জেলা প্রশাসক যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে এই রাস্তা মেরামতের কাজ করে তা প্রশংসনীয়। আশা করছি কালীপুজোর আগে পাহাড়ে পর্যটকদের ঢল নামবে।'
 

পুলিশের ট্যুইট
  • 7/7

অন্যদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে বুধবার টুইট করে জানানো হয়, 'বাংলা সিকিম সীমান্তে রংপো সেতু ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় মেরামতির জন্য সেখানে বুধবার রাত থেকে পরের দিন ভোর পর্যন্ত সমস্ত যান চলাচল বন্ধ থাকবে। এই কাজ চলাকালীন চিত্রে ও সিকিমগামী গাড়ি গুলিকে মল্লি দিয়ে পাঠানো হবে।'