scorecardresearch
 

Bangladesh: 'দুর্ভাগ্যের,' ঢাকায় রাধাকৃষ্ণের মন্দির ভাঙচুরের নিন্দায় ISKCON

দোলের আগের দিন তোলপাড় বাংলাদেশের ঢাকা শহর। বৃহস্পতিবার ঢাকার ওয়ারীতে ২২২ লালমোহন সাহা স্ট্রিটে অবস্থিত ইসকন রাধাকান্ত মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর ও লুঠপাট চালায় ২০০ জনেরও বেশি মানুষ বলে অভিযোগ। খবর অনুযায়ী, হামলায় সুমন্ত্র চন্দ্র শ্রাবণ, নীহার হালদার, রাজীব ভদ্রসহ অনেকে আহত হয়েছেন। হামলার নেতৃত্বে ছিলেন হাজী শফিউল্লাহ। 

বাংলাদেশের ইসকনের ভাঙচুর (ছবি: ফেসবুক) বাংলাদেশের ইসকনের ভাঙচুর (ছবি: ফেসবুক)
হাইলাইটস
  • দোলের আগের দিন তোলপাড় বাংলাদেশের ঢাকা শহর
  • মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর ও লুঠপাটের চালায় ২০০ জনেরও বেশি মানুষ
  • হামলায় সুমন্ত্র চন্দ্র শ্রাবণ, নীহার হালদার, রাজীব ভদ্রসহ অনেকে আহত হয়েছেন

দোলের আগের দিন তোলপাড় বাংলাদেশের ঢাকা শহরের ইসকন মন্দির (ISKCON Temple Dhaka))। বৃহস্পতিবার ঢাকার ওয়ারীতে ২২২ লালমোহন সাহা স্ট্রিটে অবস্থিত ইসকন রাধাকান্ত মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর ও লুঠপাট চালায় ২০০ জনেরও বেশি মানুষ বলে অভিযোগ। খবর অনুযায়ী, হামলায় সুমন্ত্র চন্দ্র শ্রাবণ, নীহার হালদার, রাজীব ভদ্রসহ অনেকে আহত হয়েছেন। হামলার নেতৃত্বে ছিলেন হাজী শফিউল্লাহ। 

গত বছর, বাংলাদেশের কুমিল্লা শহরের নানুয়ার দীঘি হ্রদের কাছে একটি দুর্গাপুজো প্যান্ডেলে কোরান অবমাননা করার খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর, হিংসার কারণে কমপক্ষে তিনজন নিহত হয়। এর আগে ঢাকার টিপু সুলতান রোড ও চট্টগ্রামের কোতোয়ালিতেও একই ধরনের ঘটনার খবর পাওয়া গেছে। 

গত বছর দুর্গা পুজোয় হিন্দুদের বিরুদ্ধে গুজব ছড়িয়ে দুর্গাপুজোর একের পর প্যান্ডেলে হামলা চালানো হয়, মূর্তি ভেঙে ফেলা হয়। শুধু তাই নয়, হিন্দুদের বাড়িতে হামলা চালানো হয়। একই সময়ে ঢাকায় অবস্থিত ইসকন মন্দিরেও হামলা চালানো হয়।আরও পড়ুন, ব্যারাকপুরে মৃত পুলিশকর্মী, ৩ জেলায় পথদুর্ঘটনায় মৃত ২

এর আগে সরস্বতী পুজোর সময়েও সরস্বতী মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। বারবার এমন ঘটনা ঘটনায়  ক্ষুব্ধ বাংলাদেশের সংখ্যালঘুরা।

বাংলাদেশে ৯ বছরে হিন্দুদের উপর ৩,৬০০ টিরও বেশি হামলা

বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের অধিকার নিয়ে কর্মরত সংস্থা একেএসের মতে, গত ৯ বছরে বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের ৩,৬৭৯টি হামলার সম্মুখীন হতে হয়েছে। এই সমযয়ে ধর্মীয় উপাসনালয়ে নাশকতা ও সশস্ত্র হামলার ১,৬৭৮টি ঘটনা সামনে এসেছে। এ ছাড়া হিন্দু সম্প্রদায়কে লক্ষ্য করে প্রায়ই বাড়িঘরে ভাঙচুর ও আগুন লাগিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেই থাকে।

ভারতের ইসকন মন্দিরের প্রতিক্রিয়া

ভারতের ইসকন এই ঘটনার নিন্দা করেছে এবং এটিকে দুর্ভাগ্যজনক বলে অভিহিত করেছে। ভারতের ইসকন মন্দিরের রাধারমণ দাস ট্যুইট করে জানিয়েছেন, "দোল যাত্রা এবং হোলি উদযাপনের প্রাক্কালে এটি খুবই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। মাত্র কয়েকদিন আগেই, জাতিসংঘ ১৫ মার্চকে ইসলামফোবিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আন্তর্জাতিক দিবস হিসাবে ঘোষণা করার একটি প্রস্তাব পাস করেছে। আমরা বিস্মিত যে একই জাতিসংঘ হাজার হাজার অসহায় বাংলাদেশি ও পাকিস্তানি সংখ্যালঘুদের দুঃখ-কষ্টে নীরব।"