scorecardresearch
 

Pallavi Dey Death Mystery: শ্যুটে ছিল পল্লবী, সাগ্নিকের রক্তবমি হওয়ায় ফ্ল্যাটে ছিলাম: ঐন্দ্রিলা

পল্লবীর বাবার অভিযোগ, তাঁর মেয়ের অনুপস্থিতিতে গড়ফার ফ্ল্যাটে যেতেন ঐন্দ্রিলা। এ নিয়ে এবার মুখ খুললেন অভিযুক্ত বান্ধবী।          

পল্লবী-সাগ্নিক। পল্লবী-সাগ্নিক।
হাইলাইটস
  • পল্লবীর বান্ধবী ঐন্দ্রিলার নামে থানায় অভিযোগ।
  • এবার মুখ খুললেন ঐন্দ্রিলা।
  • তাঁর দাবি, বিয়েবাড়ি থেকে গড়ফার ফ্ল্যাটে গিয়েছিলেন।

অভিনেত্রী পল্লবীর মৃত্যুর পর লিভ-ইন পার্টনার সাগ্নিক ও বান্ধবী ঐন্দ্রিলা মুখোপাধ্যায়ের নাম উঠে এসেছে চর্চায়। গড়ফা থানায় পল্লবীকে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছেন প্রয়াত অভিনেত্রীর বাবা। ওই অভিযোগপত্রে নাম রয়েছে সাগ্নিক ও ঐন্দ্রিলার। পল্লবীর বাবার অভিযোগ, তাঁর মেয়ের অনুপস্থিতিতে গড়ফার ফ্ল্যাটে যেতেন ঐন্দ্রিলা। এ নিয়ে এবার মুখ খুললেন অভিযুক্ত বান্ধবী।              

পল্লবীর বাড়িতে থাকার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন ঐন্দ্রিলা। তবে তাঁর অনুপস্থিতিতে একা নয়। বরং কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে রাত কাটিয়েছিলেন তিনি। ঐন্দ্রিলার বক্তব্য, পল্লবীর আগে থেকে সাগ্নিককে চিনতাম। তবে হাই, হ্যালোর বাইরে সম্পর্ক ছিল না। পরে জানতে পারি পল্লবীর সঙ্গে ওঁর সম্পর্ক। তাঁর প্রশ্ন, সাগ্নিক ও আমার সম্পর্ক থাকলে কেন পল্লবীর মা-বাবা আগে বলেননি? পল্লবী কেন এতদিন সাগ্নিকের সঙ্গে ছিল?  

পল্লবীর টাকায় কীভাবে আমোদপ্রমোদ করতেন সাগ্নিক, তা জানতে পড়ুন- দামি ফ্ল্যাট থেকে গাড়ি, পল্লবীর টাকায় বান্ধবীর সঙ্গে ফূর্তি সাগ্নিকের!   

ঐন্দ্রিলা জানান,'একবারই পল্লবীদের ফ্ল্যাটে গিয়েছিলাম। এ মাসের গোড়ায় গড়ফায় এক বন্ধুর বিয়ে ছিল। পুরনো বন্ধুরা একসঙ্গে হয়েছিলাম। পল্লবীই বলেছিল, রাতটা ওঁর ফ্ল্যাটে থেকে যেতে। সকালে চলে যাবি। আরও দুই বন্ধুর সঙ্গে সেদিন থেকে গিয়েছিলাম। সকালে সাগ্নিকের রক্তবমি শুরু হয়ে যায়। পল্লবী বলল, তোরা থেকে যা। আমাকে শ্যুটিংয়ে যেতে হবে। একটু সাগ্নিককে দেখিস। রান্না করে তোরা খেয়ে নে। সাগ্নিককে মাঝে মাঝে নুন-চিনির জল দিস। আমার প্যাক-আপ হওয়ার পর সাঁতরাগাছি গিয়ে ডাক্তার দেখাব। ওঁ-ই মাছ কিনে দিয়ে গেল।' 

পল্লবীর প্রাক্তন প্রেমিক রেহানের সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পরে কিছু দিনের জন্য তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ ছিল না ঐন্দ্রিলার। সেটা বছর-দেড়েকের মতো। তবে পরে সব মিটমাট হয়ে গিয়েছে। কথাবার্তাও স্বাভাবিক হয়েছিল বলে দাবি করেছেন ঐন্দ্রিলা। তিনি সাগ্নিকের প্রাক্তন প্রেমিকা নন বলেও স্পষ্ট করে দিয়েছেন। সেই সঙ্গে পল্লবীর পরিবারের আচরণেও হতাশ ঐন্দ্রিলা। তাঁর কথায়, কাকিমা আমাকে মেয়ের চোখে দেখতেন। অথচ এই অভিযোগ করলেন! আমার ভবিষ্যতের কী হবে এটুকু ভেবে দেখলেন না। 

আরও পড়ুন- 'ঐন্দ্রিলাকে ফ্ল্যাটে আনত,' খুনের অভিযোগ দায়ের পল্লবীর বাবার