scorecardresearch
 

আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে বসছে অক্সিজেন প্ল্যান্ট, খরচ ৬০ লক্ষ

করোনা পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে ভয়াবহ আকার ধারন করেছে অক্সিজেন সঙ্কটও। এই পরিস্থিতিতে আলিপুরদুয়ার জেলার রোগীদের জন্যই এই উদ্যোগ। জানা গিয়েছে, আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে কোভিড (Covid 19) রোগীদের জন্য ১৫টি বেড সংরক্ষণ করেছে কর্তৃপক্ষ। সেই বেডগুলির সঙ্গে পাইপ লাইনের মাধ্যমে অক্সিজেনের সংযোগ স্থাপন করা হবে।

প্রতীকী ছবি প্রতীকী ছবি
হাইলাইটস
  • দেশে ব্যাপক অক্সিজেন সঙ্কট
  • আলিপুরদুয়ারে রোগীদের স্বার্থে উদ্যোগ
  • চালু হচ্ছে অক্সিজেন প্ল্যান্ট

করোনা (Corona) আক্রান্ত রোগীদের অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে (Alipurduar District Hospital) বসানো হচ্ছে অক্সিজেন প্ল্যান্ট। এই প্ল্যান্ট থেকে রোগীদের বেড পর্যন্ত অক্সিজেন সরবরাহের জন্য বসছে পাইপ লাইনও। সেই পাইপ লাইনের মাধ্যমে অক্সিজেন পাবেন বেডে থাকা রোগীরা। জেলা হাসপাতালে এই প্ল্যান্টটি বসাতে প্রায় ৬০ লক্ষ টাকা খরচ হচ্ছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

করোনা পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে ভয়াবহ আকার ধারন করেছে অক্সিজেন সঙ্কটও। এই পরিস্থিতিতে জেলার রোগীদের জন্যই এই উদ্যোগ। জানা গিয়েছে, আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে কোভিড (Covid 19) রোগীদের জন্য ১৫টি বেড সংরক্ষণ করেছে কর্তৃপক্ষ। সেই বেডগুলির সঙ্গে পাইপ লাইনের মাধ্যমে অক্সিজেনের সংযোগ স্থাপন করা হবে। জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ঠিক পেছনেই চলছে অক্সিজেন প্ল্যান্ট বসানোর কাজ। সংশ্লিষ্ট এজেন্সিকে দ্রুত কাজ শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সেক্ষেত্রে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আর একমাসের মধ্যেই চালু হবে এই অক্সিজেন প্ল্যান্টটি (Oxygen Plant)।

এই বিষয়ে আলিপুরদুয়ার জেলার হাসপাতালের সুপার চিন্ময় বর্মন বলেন, 'এই প্রকল্পের ফলে রোগী, চিকিৎসক, নার্স সকলেরই সুবিধা হবে।' পাশাপাশি হাসপাতালের রোগীকল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, 'সম্ভবত রাজ্যে প্রথম কোনও জেলা হাসপাতালে এই ধরনের অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি হচ্ছে। কোভিড পরিস্থিতিতে এই প্ল্যান্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ আমাদের কাছে। গোটা দেশেই আজ অক্সিজেনের অভাব দেখা যাচ্ছে।' অন্যদিকে জেলাশাসক সুরেন্দ্র কুমার মিনা জানিয়েছেন,'আপাতত জেলায় অক্সিজেনের কোন সমস্যা নেই। জেলায় যথেষ্ট অক্সিজেনের ব্যবস্থা রয়েছে। একবার অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি হয়ে গেলে জেলার কোনও হাসপাতালেই অক্সিজেনের সঙ্কট তৈরি হবে না।'

প্রসঙ্গত বর্তমানে আলিপুরদুয়ার জেলায় প্রায় ১৮ লক্ষ মানুষ রয়েছেন। কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউতে গোটা দেশের পাশপাশি প্রভাব পড়েছে এই জেলাতেও। মাত্র এক সপ্তাহেই জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৬৭-তে পৌঁছে গিয়েছে। এমত পরিস্থিতিতে অক্সিজেন জনিত সমস্যা যেন না হয় সেদিকে নজর রেখেছে স্বাস্থ্যদপ্তর। সেক্ষেত্রে এই প্ল্যান্ট শুধু কোভিড নয়, জেলার অন্যান্য রোগীদেরও সাহায্য করবে মনে করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত কয়েকদিন আগেই পিএম কেয়ার ফান্ডের সাহায্যে দেশের প্রতিটি জেলার সরকারি হাসপাতালে অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।