scorecardresearch
 

কয়লা পাচারকাণ্ডে প্রথম গ্রেফতার! CIDর জালে লালা ঘনিষ্ঠ রণবীর সিং

বেআইনি কয়লা পাচার মামলায় বড়সড় সাফল্য পেলো রাজ্য পুলিশের সিআইডি। শুক্রবার রাতে সিআইডির একটি দল পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্ডাল থেকে গ্রেফতার করেছে অনুপ মাজি ওরফে লালা ঘনিষ্ঠ একজনকে। ধৃতর নাম রনবীর সিং। রনবীর সিংয়ের বাড়ি অন্ডাল থানার কাজোড়া এলাকায়।

কয়লা পাচার কাণ্ডে গ্রেফতার কয়লা পাচার কাণ্ডে গ্রেফতার
হাইলাইটস
  • কয়লা পাচারকাণ্ডে প্রথম গ্রেফতার
  • CIDর জালে লালা ঘনিষ্ঠ রণবীর সিং
  • শুক্রবার রাতে অন্ডাল থেকে গ্রেফতার

বেআইনি কয়লা পাচার মামলায় বড়সড় সাফল্য পেলো রাজ্য পুলিশের সিআইডি। শুক্রবার রাতে সিআইডির একটি দল পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্ডাল থেকে গ্রেফতার করেছে অনুপ মাজি ওরফে লালা ঘনিষ্ঠ একজনকে। ধৃতর নাম রনবীর সিং। রনবীর সিংয়ের বাড়ি অন্ডাল থানার কাজোড়া এলাকায়। শনিবার ধৃতকে আসানসোল আদালতে তোলা হবে । সিআইডি সূত্রে আরো জানা গেছে, ধৃতকে জেরা করে অনেক তথ্য পাওয়া যাবে। যা, এই মামলার তদন্তে অনেক সাহায্য করবে।

কয়লা পাচার কাণ্ডে গ্রেফতার

প্রসঙ্গত, কয়লা পাচার কাণ্ডে এটাই প্রথম গ্রেফতার। ইতিমধ্যে এই তদন্তে কেন্দ্রীয় বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা একাধিকবার তল্লাশি চালিয়েছে রাজ্য জুড়ে। এই তদন্তে তল্লাশি চালানো হয়েছে কয়লা পাচার কাণ্ডে নাম উঠে আসা লালার বাড়িতেও। অন্যদিকে এই মামলায় বিনয় মিশ্রের এখনও কোনও খোঁজ পায়নি সিবিআই। বিনয়ের বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিশ জারি করার জন্য ইন্টারপোলের দ্বারস্থ হয়েছে সিবিআই। অন্যদিকে, খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না বিনয় মিশ্রের ভাই বিকাশ মিশ্রর।

আরও পড়ুন, আরও বিপাকে বিনয় মিশ্র, এবার ওপেন ওয়ারেন্ট জারি করল CBI

ইতিমধ্যে বিনয় মিশ্রের বিরুদ্ধে জারি হয়েছে ওপেন ওয়ারেন্ট নোটিস। বাড়িতে হানা দিয়ে খুঁজে পাওয়া যায়নি যুব তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা বিনয় মিশ্রকে। তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেও ফল হয়নি। সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিট জমা দিলেও বিনয় মিশ্রের নাগাল পায়নি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। তাই গরু পাচারকাণ্ডে অন্যতম অভিযুক্ত ব্যবসায়ী বিনয় মিশ্রের বিরুদ্ধে এবার রেড কর্ণার নোটিস জারির পক্ষেই এগোচ্ছে সিবিআই। সেই কারণেই ব্যবসায়ী বিনয় মিশ্রের বিরুদ্ধে এবার ওপেন ওয়ারেন্ট নোটিস জারি করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটি।

বিনয় মিশ্রের খোঁজে সিবিআই

গত জানুয়ারিতে  যুব তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা বিনয় মিশ্রের একাধিক আস্তানায় তল্লাশি চালিয়েছিল সিবিআই। রাসবিহারী এভিনিউ, লেকটাউন-সহ কলকাতার তিনটি আস্তানায় তল্লাশি চালায় সিবিআই। একাধিক জিনিসও বাজেয়াপ্ত করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। লুকআউট নোটিস জারির পরে বিনয়কে সমনও পাঠানো হয়েছিল। এরপরেই আসানসোলে সিবিআই-এর বিশেষ আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে বিনয় মিশ্রের বিরুদ্ধে। এরপর ফেরার ঘোষণা করা হয় তাকে। তারপরেই বিনয় মিশ্রের বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিস জারর তৎপরতা শুরু করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।