scorecardresearch
 

দুর্ধর্ষ! কিডন্যাপারদের হাত কামড়ে ২কিমি দৌড়ে বাড়ি পৌঁছল বালক

গত শনিবার এলাকার নামজাদা এক কাপড় ব্যবসায়ীর ১১ বছরের ছেলে আরব সাইকেলে করে সংলগ্ন রেলওয়ে রোডে সবজি কিনতে যায়। অভিযোগ, সেই সময়ই একদল দুষ্কৃতী গাড়িতে চেপে এসে তার রাস্তা আটকায়। এরপর সাইকেল-সহ তাকে গাড়িতে টেনে তুলে নেয়। 

অপহরণকারীদের হাত থেকে নিজেকে রক্ষা বালকের অপহরণকারীদের হাত থেকে নিজেকে রক্ষা বালকের
হাইলাইটস
  • ১১ বছরের বালককে অপহরণ
  • সাহসের জেরে অপহরণের ছক বানচাল করল বালক
  • জেনে নিন সম্পূর্ণ ঘটনা

সাহস ও বুদ্ধিমত্তার জেরে অপহরণের (Kidnap) হাত থেকে নিজেকে বাঁচালো এক বালক। অর্থাৎ অপহরণকারীদের ছক বানচাল করে দেয়ে সে। আর শুধু তাই নয়, একটানা ২ কিলোমিটার ছুটে নিজের বাড়িতেও পৌঁছায় ওই বালক। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লি সংলগ্ন গাজিয়াবাদের (Ghaziabad) মুরাদনগর থানা এলাকায়।  

জানা গিয়েছে, গত শনিবার এলাকার নামজাদা এক কাপড় ব্যবসায়ীর ১১ বছরের ছেলে আরব সাইকেলে করে সংলগ্ন রেলওয়ে রোডে সবজি কিনতে যায়। অভিযোগ, সেই সময়ই একদল দুষ্কৃতী গাড়িতে চেপে এসে তার রাস্তা আটকায়। এরপর সাইকেল-সহ তাকে গাড়িতে টেনে তুলে নেয়। 

অপহরণকারীর হাতে কামড় দিয়ে পালায় আরব

এই বিষয়ে আরব জানাচ্ছে, অপহরণকারীরা সংখ্যায় ৪ জন ছিল। তাদের হাতে ছল অস্ত্র। তাকে গাড়িতে তোলার পর সাইকেলটি ফেলে দেওয়া হয় এবং তার পোশাক খুলে নেওয়া হয়। এরপর রাস্তায় এক জায়গায় গাড়ি থামায় তারা। সেইসময় অপহরণকারীদের একজনের মোবাইলে ফোন আসে। তখনই সুযোগ বুঝে আরব এক অপহরণকারীর হাতে সজোরে কামড় দিয়ে গাড়ি থেকে নেমে পালায়। প্রায় ২ কিলোমিটার ছুটে নিজের বাড়িতে পৌঁছায় সে। 

পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ

এদিকে আরবকে বিবস্ত্র অবস্থায় দেখে বিষয়টি জানতে চান পরিবারের সদস্যরা। সবকিছু শুনে চোখ কপালে উঠে যায় তাঁদের। এরপর পুলিশের দ্বারস্থ হন পরিবারের সদস্যরা। তবে পরিবারের দাবি, প্রথমদিকে অনেকবার বলা সত্ত্বেও অভিযোগ নিতে চাইছিল না পুলিশ। অনেক পরে নেওয়া হয় অভিযোগ। পুলিশ যদি দ্রুত সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখত, তাহলে অপহরণকারীরা পালাতে পারত না বলেই মনে করছে আরবের পরিবার। 

আরবের বাবা জানাচ্ছেন, তাঁর ১১ বছরের ছেলে সাহস ও উপস্থিতবুদ্ধির জেরে অপহরণের ছক বানচাল করে দিয়েছে। তবে ঘটনায় রীতিমতো আতঙ্কে রয়েছে গোটা পরিবার। পুলিশ তদন্ত শুরু করলেও আগামিদিনে যে এমন ঘটনা ফের ঘটবে না, সেই বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারছেন না আরবের বাড়ির লোকেরা। 

আরও পড়ুন - স্নানের সময় এই ৪ বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখুন, নয়তো পড়তে পারে টাক