scorecardresearch
 

Madhya Pradesh Bhopal Crime : বন্ধুকে খুন করে পাশে রাখল মরা সাপ, যাতে সবাই ভাবে...

Madhya Pradesh Bhopal Crime: বন্ধুকে খুন করেছিল। পাশে রেখে দিয়েছিল একটা সাপ। যাতে পুলিশ এবং বাকিরা মনে করে সাপের কামড়ে মৃত্যু হয়েছে। তবে শেষ রক্ষা হল না। পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করেছে। মধ্যপ্রদেশের ভোপালের ঘটনা।

বন্ধুকে খুন করে পাশে রেখে দেওয়া হয়েছে মরা সাপ (প্রতীকী ছবি) বন্ধুকে খুন করে পাশে রেখে দেওয়া হয়েছে মরা সাপ (প্রতীকী ছবি)
হাইলাইটস
  • বন্ধুকে খুন করেছিল
  • পাশে রেখে দিয়েছিল একটা সাপ
  • পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করেছে

Madhya Pradesh Bhopal Crime: বন্ধুকে খুন করেছিল। পাশে রেখে দিয়েছিল একটা সাপ। যাতে পুলিশ এবং বাকিরা মনে করে সাপের কামড়ে মৃত্যু হয়েছে। তবে শেষ রক্ষা হল না। পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করেছে। মধ্যপ্রদেশের ভোপালের ঘটনা। 

সাপের কামড় দেখানোর চেষ্টা 
পুলিশ বুধবার মধ্যপ্রদেশের ভোপালে বন্ধুকে খুন করা এবং সাপের কামড়ে মারা গেছে বলে মনে করার জন্য তাঁর শরীরের পাশে একটি মৃত কোবরা রাখার জন্য একজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। 

অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসিপি) রাজেশ সিং ভাদৌরিয়া ইন্ডিয়া টুডে-কে বলেছেন যে এখ বাস চালক নাভাল সিংয়ের দেহ উদ্ধার হয়েছে। মিসরোদ থানা এলাকায় তাঁর বন্ধু সন্দীপ বাঘমারের বাড়িতে পাওয়া গেছে মরদেহ। 

“একটি মৃত কোবরা সাপও মৃতদেহের কাছে পড়ে ছিল। বাঘমারে আমাদের বলেছিলেন যে তিনি এবং তাঁর বন্ধুরা রাতে একসঙ্গে মদ খেয়েছিল,” ভাদৌরিয়া বলেছিলেন।

বাড়িতে ঘুমাতে বলেছিল
পুলিশ জানিয়েছে, বাগমারে নাভাল সিংকে তাঁর বাড়িতে ঘুমোতে বলেছিলেন। কারণ রাত হয়ে গেছে। আর তার পরের দিন সকালে ওই ব্যক্তি পুলিশকে জানায় যে তার বন্ধু মারা গেছে।

পুলিশ যখন বাঘমারের বাড়িতে পৌঁছয়, তাঁরা মৃতদেহের কাছে একটি মৃত কোবরা পড়ে থাকতে দেখেছিলেন। যার কারণে প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছিল যে রাতে ঘুমানোর সময় সিং সাপের কামড়ে মারা যেতে পারে।

আরও পড়ুন: 'ওঁকে মালা পরে ঘুরতে বলো,' শুভেন্দুকে কটাক্ষ পার্থর

আরও পড়ুন: চরক-শপথে তুমুল বিতর্ক, ভুল স্বীকার কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের

আরও পড়ুন: আইটিআর ফাইলের শেষ সুযোগ, জেনে নিন তারিখ

ভাদোরিয়া বলেন, মামলার তদন্তের সময় সংক্ষিপ্ত ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে সাপের কামড়কে মৃত্যুর কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়নি। “নিহতের শরীরে বিষ ছিল না। শরীরে সাপের কামড়ের চিহ্নও ছিল না। সংক্ষিপ্ত পিএম রিপোর্টে জানা গেছে যে নেভাল শ্বাসরোধের কারণে মারা গেছে,” তিনি বলেন।

এর পরেই বাগমারেকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে, অভিযুক্তরা পুলিশকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছিল কিন্তু পরে স্বীকার করে যে সিংকে তার মুখ ও নাকের চারপাশে কাপড় দিয়ে জড়িয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করেছে।

ঘটনাটি ঘটেছিল যখন তারা মারামারি করছিল, পুলিশ বলেছে, একটি মৃত সাপ মরদেহের কাছে রাখা হয়েছিল, যাতে পুলিশকে মূল ঘটনা থেকে সরানো যায়।

খতিয়ে দেখছে পুলিশ
অভিযুক্তকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এবং পুলিশ তদন্ত করছে যে বাগমারে একাই নাকি অন্য কেউ খুন করেছে। কী কারণে তাঁদের মধ্যে গেলমাল হল,জানার চেষ্টা করছে। কী করে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে, তা দেখা হচ্ছে। তাকে জিজ্ঞাবাদা করে তথ্য পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে অপরাধের ধরন দেখে অনেকেই বেশ তাজ্জব হয়ে গিয়েছেন। অভিযুক্ত যে ছকই করে থাকুন না কেন, তার পরিকল্পনা সফল হল না বলে মনে করা হচ্ছে।