scorecardresearch
 
 

নৃশংস ! কর্ণাটকে ৩৮টি বানরকে হত্যা, আহত আরও ২০টি

বানরগুলিকে প্রথমে বিষ দেওয়া হয়। তারপর একটি ব্যাগে ভরে প্রচণ্ড মারধর করার পর ফেলে দেওয়া হয় রাস্তার ধারে। বিষয়টি নজরে আসার পর আহত বানরগুলিকে জল দেন গ্রামবাসীরা। 

প্রতীকী ছবি প্রতীকী ছবি
হাইলাইটস
  • কর্ণাটকে নৃশংস ঘটনা
  • ৩৮টি বানরের দেহ উদ্ধার
  • আহত অবস্থায় উদ্ধার আরও ২০টি বানর

প্রাণীদের প্রতি নৃশংসতার আরও এক নিদর্শন। মৃত অবস্থায় পাওয়া গেল ৩৮টি বানরকে। আহত আরও ২০টি বানর। ঘটনাস্থল কর্ণাটকের (Karnataka) হাসান জেলার চৌদানাহাল্লি গ্রাম। জানা যাচ্ছে বানরগুলিকে প্রথমে বিষ দেওয়া হয়। তারপর একটি ব্যাগে ভরে প্রচণ্ড মারধর করার পর ফেলে দেওয়া হয় রাস্তার ধারে। বিষয়টি নজরে আসার পর আহত বানরগুলিকে জল দেন গ্রামবাসীরা। 

রাস্তার পাশে ব্যাগটিকে পড়ে থাকতে দেখে সন্দেহ হয় পথচারীদের। ব্যাগটি খুলতেই শিউড়ে ওঠেন তাঁরা। গ্রামবাসীদের অনুমান, ব্যাগে ভরে মারধর করা হয় ওই বানরগুলিকে (Monkeys)। যে বানরগুলি বেঁচে ছিল সেগুলিও কার্যত নিঃশ্বাস নিতে পারছিল না।  

এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান বনবিভাদের পদস্থ কর্তারা। ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছেন তাঁরা। একইসঙ্গে বানরগুলিকে কবর দেওযার ব্যবস্থাও করা হয়েছে। পুলিশ জানাচ্ছে, বানরগুলিকে বিষ দেওয়া হয়েছিল বলেই প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে। 

অতীতেও ঘটেছে এমন ঘটনা

প্রসঙ্গত প্রাণীদের ওপর নৃশংস অত্যাচারের ঘটনা এই প্রথম নয়। এর আগে কেরালায় আনারসের মধ্যে বারুদ রেখে হত্যা করা হয় অন্তঃসত্ত্বা হাতিকে। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রীতিমতো সমালোচনায় সরব হয় প্রাণীপ্রেমী সংগঠনগুলি। তারও আগে এনআরএস হাসপাতালের নার্সিং হোস্টেলের পিছনে বেশকয়েকটি কুকুর ছানার দেহ উদ্ধার হয়। সেই ঘটনায় নার্সিং-এর ২ ছাত্রীকে গ্রেফতারও করে এন্টালি থানার পুলিশ। 

আরও পড়ুনWhatsApp : স্টোরেজ ও ডেটা বাঁচানোর জন্য বদলে ফেলুন সেটিংস