scorecardresearch
 

Yogini Ekadashi 2022 : আজ যোগিনী একাদশী, জানুন শুভ সময়-পুজোর বিধি ও মাহাত্ম্য

যোগিনী একাদশীতে ভক্তরা পূর্ণ আচার-বিচার মেনে ভগবান বিষ্ণুর পুজো করেন এবং উপবাস পালন করেন। মনে করা হয় এই একাদশীতে উপবাস করলে সমস্ত পাপ থেকে মুক্তি মেলে। এই একাদশী যাবতীয় রোগব্যাধি থেকে শরীরকে মুক্তি দেয় এবং পুণ্য ও খ্যাতি বৃদ্ধি করে।

যোগিনী একাদশীতে করুন ভগবান বিষ্ণুর আরাধনা যোগিনী একাদশীতে করুন ভগবান বিষ্ণুর আরাধনা
হাইলাইটস
  • যোগিনী একাদশীতে ভক্তি ভরে বিষ্ণুর পুজো করতে হয়
  • পালন করতে হয় উপবাস
  • জেনে নিন এর ফলাফল

হিন্দু ধর্মে একাদশীর বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। আজ যোগিনী একাদশী (Yogini Ekadashi 2022)। এই দিনে ভক্তরা পূর্ণ আচার-বিচার মেনে ভগবান বিষ্ণুর পুজো করেন এবং উপবাস পালন করেন। মনে করা হয় এই একাদশীতে উপবাস করলে সমস্ত পাপ থেকে মুক্তি মেলে। এই একাদশী যাবতীয় রোগব্যাধি থেকে শরীরকে মুক্তি দেয় এবং পুণ্য ও খ্যাতি বৃদ্ধি করে।

যোগিনী একাদশীর শুভ সময় (Yogini Ekadashi 2022 Date And Time) - যোগিনী একাদশী শুরু হয়েছে ২৩ জুন রাত ৯টা ৪১ মিনিটে। চলবে ২৪ জুন রাত ১১টা ১২ মিনিট পর্যন্ত। ২৫ জুন উপবাস ভাঙার সময় হল ৫টা ৫১ মিনিট থেকে ৮টা ৩১ মিনিট। যোগিনী একাদশীতে স্বার্থ যোগ এবং সিদ্ধি যোগ গঠিত হয়েছে। এর প্রভাবে, শুভ সময়ে করা পুজো অত্যন্ত ভাল ফল দেবে।

যোগিনী একাদশীর গুরুত্ব (Yogini Ekadashi Significance) - পুরাণ মতে যোগিনী একাদশীতে উপবাস করলে মৃত্যুর পর নরকের কষ্ট ভোগ করতে হয় না। এই যাঁরা উপবাস করেন তাঁদের মৃত্যুর পর স্বর্গ প্রাপ্তি হয়। যোগিনী একাদশীতে, কেউ উপবাসের করলে ভগবান বিষ্ণুর কৃপা লাভ করেন। যে ভক্ত যোগিনী একাদশীতে উপবাস করেন তিনি ৮৮ হাজার ব্রাহ্মণকে খাওয়ানোর পুণ্যলাভ করেন।

যোগিনী একাদশীর পুজো বিধি (Yogini Ekadashi Puja Vidhi) - সকালে স্নান করে উপবাসের ব্রত শুরু করুন। এর পর কলস স্থাপনা করুন। ভগবান বিষ্ণুর মূর্তি কলসের উপরে স্থাপন করে পুজো করা হয়। ভগবানকে ফল-ফুল নিবেদন করে শ্রদ্ধার সঙ্গে আরতি করুন। গুড় ও ছোলার প্রসাদ নিবেদন করুন। এই পুজোর মাধ্যমে ভগবান বিষ্ণু ভক্তের জীবনে ইতিবাচক শক্তি দেন। একইসঙ্গে মা লক্ষ্মীও ভক্তের সম্পদের ভান্ডার পরিপূর্ণ রাখেন। 

উপবাসের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলো মাথায় রাখুন - উপবাসের রাতে জাগরণ করতে হবে। যিনি যোগিনী একাদশী উপবাস করবেন, তিনি কখনওই মিথ্যা কথা বলবেন না। এই দিনে দরিদ্রকে সাহায্য করা উচিত। উপবাস না করলে না করলেও শুধুমাত্র নিরামিষ খাবার খান। এই উপবাস পালন করার সময়, ভক্তের ব্রহ্মচর্য পালন করা উচিত এবং মাটিতে বিশ্রাম নেওয়া উচিত। নির্দিষ্ট সময়ে উপবাস ভাঙুন।

আরও পড়ুনআজ থেকে ফের বৃষ্টি বাড়বে উত্তরবঙ্গে, দক্ষিণের পূর্বাভাস কী?