scorecardresearch
 
 

নজিরবিহীনভাবে জমি-দোকান দখল করেও ফিরিয়ে দিল তৃণমূল, ডাবগ্রাম ফুলবাড়িতে

গোটা রাজ্যে বিশেষ করে উত্তরবঙ্গেরই দিনহাটা, চোপড়ায় ভোটের ফল বেরনোর পর বিরোধী বিজেপির কর্মী সমর্থকদের আক্রমণ করা হয়েছে, প্রার্থীকে মারধর করে ফেলে রাখা হয়েছে সেখানে শিলিগুড়ি লাগোয়া জলপাইগুড়ির ডাবগ্রাম ফুলবাড়িতে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের জমি দোকান দখল করে নেওয়ার পরও তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে সেই সম্পত্তি ফিরিয়ে দিল তৃণমূল নেতাই।

সম্প্রীতির নজির সম্প্রীতির নজির
হাইলাইটস
  • ভোটের ফলে বেরনোর পর দখল হয়েছিল সম্পত্তি
  • মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরই তা ফিরিয়ে দেওযা হল
  • তৃণমূল ব্লক সভাপতির নেতৃত্বে সম্পত্তি ফেরাও অভিযান

গোটা রাজ্যে বিশেষ করে উত্তরবঙ্গেরই দিনহাটা, চোপড়ায় ভোটের ফল বেরনোর পর বিরোধী বিজেপির কর্মী সমর্থকদের আক্রমণ করা হয়েছে, প্রার্থীকে মারধর করে ফেলে রাখা হয়েছে সেখানে শিলিগুড়ি লাগোয়া জলপাইগুড়ির ডাবগ্রাম ফুলবাড়িতে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের জমি দোকান দখল করে নেওয়ার পরও তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে সেই সম্পত্তি ফিরিয়ে দিল তৃণমূল নেতাই।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ নাকি, অনুশোচনা?

বিধানসভা নির্বাচনের ফল বের হওয়ার পরই ডাবগ্রাম ফুলবাড়ি বিধানসভা এলাকায় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের ওপর অত্যাচারের অভিযোগ উঠেছিল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। অনেক জায়গায় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের জমি দখল, বাড়ি ভাঙচুর, দোকান বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। কিন্তু ভোট পরবর্তী হিংসা রুখতে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশের পরই জমি ফিরিয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করলো তৃণমূলের ডাবগ্রাম ফুলবাড়ি কমিটি। খানিকটা নজিরবিহীন ভাবেই। ফুলবাড়ি দু নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের এক বাসিন্দার চার কাঠা জমি ও আরেক ব্যক্তির চায়ের দোকান বন্ধ করে দিয়েছিল তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। বুধবার তৃণমূল ব্লক সভাপতি দেবাশিস প্রামাণিক-এর নেতৃত্বে দুজনের জমি ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি

দেবাশিস বাবু জানান, ভোট গণনার পর দলের কিছু কর্মী বিরোধীদের উপর অন্যায় করেছিল। ভুল করে জমি ও দোকান দখল হয়েছিল। তা দলীয় নেতৃত্ব মেনে নেবে না কোনও দিনই। আমরা  জানতে পেরে ফিরিয়ে দিয়েছি। এলাকার সবাই নাগরিক ও বাসিন্দা। নির্বাচনের ফলের প্রভাব যাতে স্বাভাবিক জীবন যাপনে না পরে তার জন্য আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

বিজেপির কটাক্ষ ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন

অবশেষে বোধোদয় হয়েছে বলে কটাক্ষ করলেও পুরো প্রক্রিয়াটিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এলাকার বিজেপি বিধায়ক শিখা চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, আমরা যে দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ করছিলাম, স্থানীয় কর্মী-সমর্থকদের মারধর করছে তৃণমূল নেতা কর্মীরা। তাঁদের জমি ফিরিয়ে দেওয়ার মধ্য দিয়ে অন্তত এটা প্রমাণ হল যে আমরা মিথ্যে কথা বলিনি। তবে তাঁদের যে শেষ পর্যন্ত তাদের বোধোদয় হয়েছে, মনুষ্যত্ব ফিরে এসেছে, এ জন্য ওঁদের ধন্যবাদ জানাই।

মামলা থেকে অব্যাহতি

নির্বাচনের ভোট গণনার পর ফল পেরোনোর পরই স্থানীয় কয়েকজনের জমি দখল করে নিয়েছিল তৃণমূল কর্মীরা। এ বিষয়ে আদালতে মামলা করেছিলেন এই বিজেপি কর্মী সমর্থক।