scorecardresearch
 

DA WBSE: 'ডিএ বাদামভাজা খাওয়ার জন্য?' বিদ্যুৎ পর্ষদের ৩ কর্তার বেতন বন্ধের নির্দেশ হাইকোর্টের

দুই সংস্থার কর্মীরা অভিযোগ করেছিলেন,আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও তাঁদের বকেয়া ডিএ মেটানো হচ্ছে না। হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল,২০১৯ এবং ২০২০ সালের বকেয়া মহার্ঘভাতার পাঁচ ভাগের এক ভাগ কর্মীদের দিতে হবে। কিন্তু তা না করে শুধুমাত্র ২০১৯ সালের বকেয়ার পাঁচ ভাগের এক ভাগ টাকা দেওয়া হয়েছে।

রাজ্য বিদ্যুৎ পর্ষদের দুই সংস্থার কর্মীদের ডিএ মেটানোর নির্দেশ। রাজ্য বিদ্যুৎ পর্ষদের দুই সংস্থার কর্মীদের ডিএ মেটানোর নির্দেশ।
হাইলাইটস
  • বকেয়া কর্মীদের ডিএ।
  • হাইকোর্টের নির্দেশ বন্ধ ৩ কর্তার বেতন।

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও বকেয়া মহার্ঘ ভাতা পাননি রাজ্য বিদ্যুৎ পর্ষদের কর্মীরা। এ বার রাজ্যের দুই বিদ্যুৎ সংস্থা ডব্লুবিপিডিসিএল এবং ডব্লুবিপিডিসিএল-র বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিলেন বিচারপতি রাজশেখর মান্থা। বিদ্যুৎ পর্ষদের তিন কর্তার বেতন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। সেই সঙ্গে বিচারপতির পর্যবেক্ষণ,ডিএ-র টাকা কি বাদামভাজা খাওয়ার জন্য দিতে বলা হয়েছে নাকি? 

দুই সংস্থার কর্মীরা অভিযোগ করেছিলেন,আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও তাঁদের বকেয়া ডিএ মেটানো হচ্ছে না। হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল,২০১৯ এবং ২০২০ সালের বকেয়া মহার্ঘভাতার পাঁচ ভাগের এক ভাগ কর্মীদের দিতে হবে। কিন্তু তা না করে শুধুমাত্র ২০১৯ সালের বকেয়ার পাঁচ ভাগের এক ভাগ টাকা দেওয়া হয়েছে। বিচারপতির প্রশ্ন, ২০২০ সালের নতুন নিয়ম অনুযায়ী বকেয়া মহার্ঘ ভাতার এক পঞ্চমাংশ দেওয়া হল না কেন?
    
এ দিন বিচারপতি রাজশেখর মান্থার নির্দেশ, রাজ্য বিদ্যুৎ পর্ষদের কর্মীদের ডিএ না দেওয়ায় বিদ্যুৎ পর্ষদের সিএমডি এবং দুই জেনারেল ম্যানেজারের বেতন বন্ধ থাকবে। ১৫ জুলাই পর্যন্ত তাঁদের বেতন বন্ধ থাকবে। এর মধ্যে কর্মীদের বকেয়া ডিএ নির্দেশ মানতে হবে। তার পর বেতন বন্ধের নির্দেশ প্রত্যাহার করা হবে। এ দিন ভর্ৎসার সুরে বিচারপতির পর্যবেক্ষণ,'যা টাকা দিয়েছে তাতে বাদাম খাওয়ার টাকাও হয় না! কর্মীরাও মানুষ। তাঁদেরও সংসার আছে। ভাল ব্যবহার করুন। 

প্রসঙ্গত, আদালত নির্দেশ দিয়েছিল, ২৩ জুনের মধ্যে রাজ্যের দুই বিদ্যুৎ সংস্থার প্রায় ২০ হাজার কর্মীর বকেয়া ডিএর পাঁচ ভাগের এক ভাগ মিটিয়ে দিতে হবে। ২৪ জুন আদালতকে তা জানানোর কথা ছিল। বাকি টাকা কত কিস্তিতে মেটাতে পারবে বিদ্যুৎ পর্ষদ, তাও জানাতে হত। কিন্তু নির্দেশ পালন করেনমি রাজ্য বিদ্যুৎ পর্ষদের অধীনস্থ দুটি বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা এবং বিদ্যুৎ বণ্টনকারী সংস্থা ডব্লিউবিএসইডিসিএল এবং ডব্লিউবিপিডিসিএল। 

আরও পড়ুন- মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন দ্রৌপদীর, 'শুভকামনা' মমতার