scorecardresearch
 
 

বেনজির গোষ্ঠী সংঘর্ষ ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের সামনে! গ্রেফতার অনেকে

সমর্থকদের সঙ্গে হাতাহাতি বাঁধে পুলিশেরও। পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন সমর্থক। কয়েকজনকে গ্রেফতার করে লালবাজারে নিয়ে গেছে পুলিশ।

ইস্টবেঙ্গল ইস্টবেঙ্গল
হাইলাইটস
  • 'গো ব্যাক নিতু' স্লোগান দিতে থাকেন একদল ইস্টবেঙ্গল সমর্থক
  • কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ
  • বেঁকে বসেছেন ইস্টবেঙ্গলের ক্লাব কর্তারা

বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে ক্লাব কর্তৃপক্ষের চুক্তি-সংঘাতে বেনজির সংঘর্ষ দেখল ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের সামনে কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সমর্থকদের ব্যাপক বিক্ষোভ। ইস্টবেঙ্গলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। সমর্থকদের সঙ্গে হাতাহাতি বাঁধে পুলিশেরও। পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন সমর্থক। কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: CFL-এ অবনমনের আশঙ্কা ইস্টবেঙ্গলের? জানুন বিস্তারিত 

এদিন লেসলি ক্লডিয়াস সরণিতে জড়ো হয়ে 'গো ব্যাক নিতু' স্লোগান দিতে থাকেন একদল ইস্টবেঙ্গল সমর্থক। কিছুক্ষণ পরেই সমর্থনকারী গোষ্ঠীর সদস্যরা এসে প্রতিবাদ জানায়। এরপরেই বচসা বাড়তে থাকে এবং হাতাহাতি শুরু হয়ে যায়। ক্লাবকর্তাদের বিরোধী গোষ্ঠীর দাবি, ঝামেলা হওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি করে সমর্থনকারী গোষ্ঠীর লোকেরাই। যারা সমর্থনকারী গোষ্ঠীর সদস্য তাদের আলাদা করে চিহ্নিত করার জন্য হাতে নীল-সাদা রিবন পরানো হয়। 

এফএসডিএলের উদ্যোগে ইস্টবেঙ্গল এবং ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্টের মধ্যে যে দ্বন্দ্বে বেঁকে বসেছেন ইস্টবেঙ্গলের ক্লাব কর্তারা। শ্রী সিমেন্টের পাঠানো নয়া চুক্তিপত্রে সই করতে চাইছেন না ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের কার্যকরী কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে কিছুতেই শ্রী সিমেন্টের পাঠানো নয়া চুক্তিপত্রে সই করা হবে না। তাই ISL-এ এবার ইস্টবেঙ্গল আদৌ খেলতে পারবে কিনা তার উত্তর নেই ক্লাব কর্তাদের কাছে। শুধু আইএসএলই নয় ঐতিহ্যবাহী কলকাতা লিগেও ইস্টবেঙ্গলের খেলা নিয়ে সংশয় রয়েছে। 

অগাস্টে শুরু হচ্ছে কলকাতা লিগ। ইস্টবেঙ্গল এখনও কোনও ফুটবলার সই করাতে পারেনি। শ্রী সিমেন্টের পাঠানো নতুন চুক্তিপত্র সই না করলে ইস্টবেঙ্গল কলকাতা লিগ, ISL সহ কোনও টুর্নামেন্টেই নামতে পারবে না। শ্রী সিমেন্টের সঙ্গে বিবাদ না মেটালে, চুক্তিপত্রে সই না করলে এই মরসুম ছাড়াও বাকি মরসুম গুলিও ইস্টবেঙ্গলকে না খেলেই থাকতে হবে।