scorecardresearch
 

কঠোর পরিশ্রম নয়, সিনেমা দেখেই সাফল্য মহিলা হকি দলের, অবাক বিশ্ব

ভারতীয় মহিলা দল ইতিহাস গড়ে প্রথমবার অলিম্পিকের সেমিফাইনালে পৌছে গিয়েছেন। এটা আপাতত সকলের জানা। কিন্তু তাঁদের সাফল্যের পিছনে কারণ জানেন কি ? সাফল্যের নেপথ্যে একটি সিনেমা। এমনটাই জানিয়েছেন মহিলা হকি দলের কোচ সোর্ড মেরিন।

অনুপ্রাণিত মহিলা হকি দল অনুপ্রাণিত মহিলা হকি দল
হাইলাইটস
  • সিনেমা দেখেই সাফল্য় মহিলা হকি দলের
  • এমন খবর সামনে আসায় অবাক গোটা বিশ্ব
  • তবে সিনেমার নাম বলবেন না কোচ

মহিলা হকি দলের পরিশ্রমের পিছনে সিনেমা !

কঠোর পরিশ্রম বা অনুশীলন নয়। ভারতীয় মহিলা হকি দলের লাগাতার হারের পর, প্রত্যাবর্তন এর পিছনে একটি সিনেমা ! অবাক হচ্ছেন তো ! কিন্তু এটি কোনও জল্পনা নয়। খোদ ভারতীয় মহিলা হকি টিমের কোচ নিজেই এ তথ্য জানিয়েছেন।

কোন সিনেমায় ভোল বদল টিমের

তবে কোন সিনেমাটি দেখে তাঁর দল এমনভাবে মৃতপ্রায় অবস্থা থেকে চাঙ্গা হয়ে উঠল, শুধু তাই নয়, একেবারে সেমিফাইনালে ইতিহাস গড়ে পৌঁছে দিল, তা অবশ্য খোলসা করেননি তিনি। তবে সেই সিনেমাটি আধুনিক সমাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত এবং অত্যন্ত প্রেরণাদায়ক বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।

ইঙ্গিত দিয়েই চুপ কোচ

স্বভাবতই নেট জুড়ে ঝড় উঠেছে। জল্পনা-কল্পনায় কোন সিনেমা ? হকি নিয়ে তৈরি, খানিকটা এমনই প্রথম ম্যাচে হেরে যাওয়ার পর শেষ ম্যাচে সেই অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়া 'চক দে ইন্ডিয়া' নাকি অন্য কোনও একই রকমের সিনেমা, তা অবশ্য জানা যায়নি। জানার আপাতত কোনও উপায় নেই। যতক্ষণ পর্যন্ত না নিজে থেকে ভারতীয় মহিলা হকি দলের কোনও সদস্যকে বা কোচ তা জানান দিচ্ছে। ফলে আপাতত এটুকু জেনেই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে নেটিজেনদের।

বাস্তব উঠে এসেছিল পর্দায়, ফের পর্দা থেকে বাস্তব !

বহু বছর আগে পাকিস্তানের সঙ্গে আত্মঘাতী গোল করে ভিলেন বনে যাওয়া খেলোয়াড় মীররঞ্জন নেগি পরবর্তীতে মহিলা দলের কোচ হয়ে একেবারে চ্যাম্পিয়ন করে ফেলেছিলেন দলকে। সেই ঘটনা পরবর্তীতে সেলুলয়েডের পর্দায় উঠে এসেছিল 'চক দে ইন্ডিয়া' নামে। সেখানে মীররঞ্জনের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন বলিউডের বাদশা শাহরুখ খান। ভারতীয় দল হকির সেমিফাইনালে উঠে যাওয়ার পর অনেকেই টুইটারে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ভারতীয় মহিলা হকি দলকে। তাতে চক দে-র শাহরুখ খান থেকে শুরু করে রিল লাইফে অভিনয় করা বহু খেলোয়াড়ই বাস্তবের খেলোয়াড়দের প্রশংসা এবং শুভেচ্ছা জানিয়ে অকুণ্ঠ হয়েছেন। ফলে অনেকেই কোচের টুইটের সঙ্গে চক দে ইন্ডিয়া কে জড়িয়ে দিচ্ছেন। যদিও নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয় সিনেমাটির চক দে ইন্ডিয়া কি না।

প্রেরণা যোগায় অজ্ঞাত ওই সিনেমাই

জল্পনা ছড়িয়েছে কোচ সোর্ড মেরিন এর টুইট থেকে। তিনি জানিয়েছেন, পরপর হারের হ্যাটট্রিকে মনোবল তলানিতে গিয়ে ঠেকেছিল ভারতীয় দলের খেলোয়াড়দের। আত্মবিশ্বাস কমে এসেছিল। তলানিতে ঠেকা জোশ ফেরাতে প্রেরণামূলক সিনেমাটি দেখানো হয়। আর তারপরই অদ্ভুতভাবে কাজ করে যায় মেয়েদের মনে।

বিশ্বাস ফেরে ছায়াছবিতেই

কোয়ার্টার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে এক শূন্য গোলে হারিয়ে ইতিহাস তৈরি করে অলিম্পিকে প্রথম বার মহিলা দল সেমিফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে। এর পিছনে সেই সিনেমাটির রয়েছে বলে দাবি তাঁর। তিনি বলেন, যদি আপনি হার স্বীকার করে নেন, তাহলেই আপনি হেরে গেলেন। ম্যাচে হেরে যাওয়া কোনও হেরে যাওয়া নয়। এটাই মেয়েদের বলেছিলাম। আপনাকে বিশ্বাস করতে হবে, আপনি কি করতে পারেন এবং তার জন্য নির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা ধরতে হবে।

লক্ষ্যমাত্রা উঁচু তারে বেঁধে দেওয়া হয়

মেরিন বলেন, আমি মেয়েদের বলেছি তোমরা মেঘের উচ্চতাকে ছোঁয়ার চেষ্টা করো। তাহলে তোমরা যদি পড়ে যাও, তাহলে পাহাড়ের চূড়ায় পড়বে। আর যদি পাহাড়ের চূড়াকে লক্ষ্যমাত্রা ধরো, তাহলে তোমরা যদি ব্যর্থ হয়ে পড়ে যাও, তাহলে মাটিতে এসে পড়বে। এখন তোমাদেরই ঠিক করতে হবে, তোমরা কোন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করবে। আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে খেলার আগে এভাবেই দলকে চাঙ্গা করেছিলেন তিনি। তবে সিনেমাটির নাম না জানালেও, তিনি জানিয়ে দিয়েছেন এই ছবিটি সম্পর্কে আমি আমার বইয়ে উল্লেখ করেছি।