scorecardresearch
 

Famous Shiv Mandir In West Bengal : ১০০ টাকারও কম খরচে ঘুরে আসুন বাংলার বিখ্যাত এই শিব মন্দিরগুলি

গোটা শ্রাবণ মাস ধরেই চলে ভগবান শিবের বিশেষ পূজার্চনা। বিশেষত সোমবারগুলিতে বিভিন্ন শিবমন্দিরে উপচে পড়ে পুণ্যার্থীদের ভিড়। এবারেও তার ব্যতিক্রম নেই। হুগলির তারকেশ্বর হোক বা বর্ধমানের ১০৮ শিব মন্দির, সর্বত্রই বাবার মাথায় জল ঢালতে ভিড় জমাচ্ছেন ভক্তরা।

ভগবান শিব ভগবান শিব
হাইলাইটস
  • শ্রাবণে হয় শিবের বিশেষ পুজো
  • শিব মন্দিরগুলিতে নামে ভক্তের ঢল
  • রইল বাংলার বিখ্যাত কিছু শিব মন্দিরের ঠিকানা

শ্রাবণ হল ভগবান শিবের মাস। গোটা শ্রাবণ মাস ধরেই চলে ভগবান শিবের বিশেষ পূজার্চনা। বিশেষত সোমবারগুলিতে বিভিন্ন শিবমন্দিরে উপচে পড়ে পুণ্যার্থীদের ভিড়। এবারেও তার ব্যতিক্রম নেই। হুগলির তারকেশ্বর হোক বা বর্ধমানের ১০৮ শিব মন্দির, সর্বত্রই বাবার মাথায় জল ঢালতে ভিড় জমাচ্ছেন ভক্তরা। শহর কলকাতা থেকে এই মন্দিরগুলিতে পৌঁছানোও খুব একটা কঠিন নয়। আর খরচও খুব বেশি হয় না। চলুন জেনে নেওয়া যাক বাংলার তেমনই কিছু বিখ্যাত শিবমন্দিরের ঠিকানা, যেখানে আপনি খুব সহজে এবং স্বল্প খরচে পৌঁছে যেতে পারেন। 

তারকেশ্বর মন্দির
বাংলার অন্যতম বিখ্যাত শৈবক্ষেত্র হুগলির তারকেশ্বর (Tarkeshwar Mandir)। ভগবান শিব এখানে বাবা তারকনাথ নামে পূজিত। বছর বছর শ্রাবণ মাসে লক্ষ লক্ষ ভক্তের সমাগম হয় এই শৈবভূমিতে। হাওড়া থেকে লোকাল ট্রেনে খুব সহজেই আপনি পৌঁছে যেতে পারেন তারকেশ্বর। আর স্টেশন থেকে নেমে হাঁটা পথে পৌঁছান যায় মন্দিরে।  

ঘণ্টেশ্বর মন্দির
রাজ্যের হুগলি জেলার আরও এক শিবক্ষেত্রে খানাকুলের ঘণ্টেশ্বর মন্দির (Ghanteshwar Mandir)। এখানে পৌঁছানোর জন্যও প্রথমে হাওড়া থেকে ট্রেনে যেতে হবে তারকেশ্বর। সেখান থেকে গড়ের ঘাট গামী বাসে চেপে নামতে হবে খানাকুল স্টপেজে। তারপর টোটোয় চেপে ২-৩ মিনিটের পথ গেলেই পৌঁছে যাবেন ঘণ্টেশ্বর মন্দিরে। এখানে গেলে বাবা ঘণ্টেশ্বরের পাশাপাশি মা রত্নাবলীর দর্শনও পেয়ে যাবেন। এই রত্নাবলী মন্দির হল একটি সতীপীঠ। 

ষণ্ডেশ্বর তলা মন্দির
হুগলি জেলার আরও এক প্রাচীন শৈবভূমি হল চুঁচুড়ার (Chinsurah) ষণ্ডেশ্বর তলা। প্রায় ৫০০ বছর আগে, ভাগীরথী থেকে ভোলানাথকে তুলে প্রতিষ্ঠা করেন দিগম্বর হালদার নামে এক শিবভক্ত। শ্রাবণ মাসে এখানেও ঢল নামে ভক্তদের। নদীর ধারে মনোরম পরিবেশে বাবা ষণ্ডেশ্বরের দর্শনের জন্য বাইরে থেকেও ভিড় জমান অনেক পুণ্যার্থী। এই মন্দিরে যাওয়ার জন্য হাওড়া থেকে লোকাল ট্রেনে চড়ে নামতে হবে চুঁচুড়া স্টেশনে। তারপর সেখান থেকে টোটো বা রিক্সায় চেপে পৌঁছতে হবে মন্দির। 

কালনার ১০৮ শিব মন্দির
পূর্ব বর্ধমানের কালনার ১০৮ শিব মন্দিরও (Kalna 108 Shiv Mandir) শৈবভক্তদের কাছে অত্যন্ত প্রিয় তীর্থভূমি। এই মন্দিরে যাওয়ার জন্য হাওড়া বা শিয়ালদহ থেকে কাটোয়াগামী ট্রেনে চেপে অম্বিকা কালনা স্টেশনে নামতে হবে আপনাকে। সেখান থেকে টোটো বা রিক্সায় চেয়ে পৌঁছে যেতে পারেন ১০৮ শিব মন্দির। এছাড়াও প্রাচীন শহর কালনায় রয়েছে আরও দ্রষ্টব্যস্থান। 

বর্ধমানের ১০৮ শিব মন্দির
কলানা ছাড়া বর্ধমান শহরের কাছেই রয়েছে আরও এক ১০৮ শিবমন্দির (Burdwan 108 Shiv Mandir)। কালনার ১০৮ শিব মন্দির মূলত গোলাকার হলেও বর্ধমানেরটি চারকোণা বিশিষ্ট। এই মন্দিরে যাওয়ার জন্য হাওড়া বা শিয়ালদাহ থেকে ট্রেনে করে প্রথমে পৌঁছতে হবে বর্ধমান। সেখান থেকে টোটো বা রিক্সায় চেপে যেতে হবে ১০৮ শিব মন্দির। 

আরও পড়ুনস্বাধীনতার ৭৫ বর্ষপূর্তিতে তেরঙা আলোয় সাজছে সব স্মারক, বাদ শুধু তাজমহল, কেন?