scorecardresearch
 

চাকরির টোপ দিয়ে হোটেলে ডেকে ধর্ষণের অভিযোগ, শিলিগুড়িতে গ্রেফতার ২

চাকরির টোপ দিয়ে হোটেলে ডেকে ধর্ষণের অভিযোগ, শিলিগুড়িতে গ্রেফতার ২। পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। চাকরির টোপ দিয়ে প্রতারণার অভিযোগ থাকলেও ধর্ষণের অভিযোগ এই প্রথম। তাই কড়া হাতে বিষয়টি দমন করতে চাইছে পুলিশ।

প্রতারণায় অভিযুক্তদের আদালতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে প্রতারণায় অভিযুক্তদের আদালতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে
হাইলাইটস
  • চাকরির টোপ দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ
  • শিলিগুড়িতে গ্রেফতার ২
  • হোটেলে ডেকে ধর্ষণের অভিযোগ

চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে হোটেলে ডেকে সিকিমের যুবতীকে ধর্ষনের অভিযোগ ! ঘটনায় অভিযুক্ত দুই যুবককে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বিচারের আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের জামিনের আবেদন খারিজ করে তিন দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেয়।

এর আগেও প্রতারণা করেছে ধৃতরা বলে অভিযোগ

সোশ্যাল মিডিয়ায় নানারকম চাকরির বিজ্ঞপ্তি দিয়ে প্রতারণার ঘটনা হামেশাই দেখা যায়। তবে এবার চাকরির ভুয়া বিজ্ঞাপন দিয়ে যুবতীকে ধর্ষণের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য শিলিগুড়ি সংলগ্ন এলাকায়। জানা গিয়েছে দুই যুবক সোশ্যাল মিডিয়াতে চাকুরির ভুয়ো পোস্ট করতো। এরপর কোনও চাকরি প্রার্থী আবেদন করলে তাদের শহরের বিভিন্ন হোটেলে ডেকে ইন্টারভিউয়ে পাস করিয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা নিয়ে চম্পট দিত তারা।

সোস্যাল মিডিয়ায় দেওয়া হয়েছিলে চাকরির ভুয়া বিজ্ঞাপন

একইভাবে সম্প্রতি ৯ এপ্রিল সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি বেসরকারি সংস্থার অ্যাটেনডেন্টের জন্য মহিলার প্রয়োজন বলে একটি ভুয়া বিজ্ঞপ্তি দেয় অভিযুক্তরা। এমনকি ওই পদে যে চাকরি পাবে তার জন্য বিনামূল্যে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা থাকবে সংস্থার তরফে বলে ওই পোস্টে জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তি দেখে সিকিমের এক যুবতী যোগাযোগ করে।

মাটিগাড়া লাগোয়া একটি হোটেলে ডাকা হয়

দিন কয়েক বাদে ইন্টারভিউয়ের নাম ওই যুবতীকে শিলিগুড়ি সংলগ্ন মাটিগাড়া ব্লকের উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল সংলগ্ন একটি হোটেলে ডেকে পাঠায় অভিযুক্তরা। যুবতী হোটেলে ইন্টারভিউ দিতে গেলে তাকে ওই দুই যুবক বলপূর্বক ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ উঠেছে। এরপর ওই যুবতী মাটিগাড়া থানার অধীন মেডিকেল ফাঁড়িতে অভিযোগ দায়ের করে।

মোবাইল নেটওয়ার্ক ট্র্যাক করে অভিযুক্তদের হদিশ

অভিযোগ পাওয়া মাত্রই তদন্তে নামে মাটিগাড়া থানার পুলিশ। অভিযুক্তদের হদিশ পেতে তাদের মোবাইল নম্বর ট্র‍্যাক করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালিয়ে ওই দুজনকে তাদের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ধৃতরা হলো শিলিগুড়ি সংলগ্ন ফুলবাড়ির আম্বিকানগরের বাসিন্দা বাবলু সরকার ও শিলিগুড়ি পৌরনিগমের ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের ভারতনগরের বাসিন্দা গৌতম দাস। ধৃতদের শুক্রবার শিলিগুড়ি আদালতে তোলা হলে বিচারক জামিনের আবেদন খারিজ করে তিনদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে আরো জানতে পেরেছে অভিযুক্তরা বহুদিন ধরেই চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা লুঠ করে আসছিল।  শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের ডিসিপি কুনওয়ার ভুষণ সিং বলেন, "অভিযোগ পেতেই অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। সব খতিয়ে দেখা হচ্ছে।"