scorecardresearch
 
 

COVID-এ রোগীদের অক্সিজেন থেরাপিতে কমছে মগজের ধার? চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট

করোনো আক্রান্ত হলে শুধু যে শরীর দুর্বল হয় তাই নয়। সংক্রমণ বেশি হলে ক্ষতি হতে পারে মস্তিষ্কেরও। বিশেষ করে যাঁরা অক্সিজেন থেরাপিতে রয়েছেন, তাঁদের মস্তিষ্কের ক্ষমতা কম হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।

গ্রে ম্যাটার গ্রে ম্যাটার
হাইলাইটস
  • COVID-এ রোগীদের অক্সিজেন থ্যারাপিতে কমছে মগজের ধার
  • গবেষণার পর দাবি করলেন চিকিৎসকদের একাংশ

করোনো আক্রান্ত হলে শুধু যে শরীর দুর্বল হয় তাই নয়। সংক্রমণ বেশি হলে ক্ষতি হতে পারে মস্তিষ্কেরও। বিশেষ করে যাঁরা অক্সিজেন থেরাপিতে রয়েছেন, তাঁদের মস্তিষ্কের ক্ষমতা কম হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়। সতর্ক করলেন নিউরোলজিস্টরা। 

গবেষকরা জানিয়েছেন, সাম্প্রতিক কিছু গবেষণায় দেখা গিয়েছে, করোনা সংক্রমিতের যদি বেশিরভাগ সময় জ্বর থাকে ও তাঁকে অক্সিজেন সাপোর্টে থাকতে হয় তাহলে  gray matter এর ভলিউম কমতে শুরু করে। এই গবেষণাটি করেছে জর্জিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটি। 

Wockhardt Hospital- এর চিকিৎসক পবন পাল এই নিয়ে জানান,  'কোনও কোভিড আক্রান্তের যদি বেশিদিন জ্বর থাকে ও তাঁকে অক্সিজেন সাপোর্টে থাকতে হয়, তাহলে মস্তিষ্কের ক্ষমতা হ্রাস পেতে পারে। বিশেষ করে gray matter-এ এর প্রভাব পড়তে পারে।' 

আরও পড়ুন : অনলাইনে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক হবে, বিজ্ঞপ্তি বিশ্বভারতীর

gray matter কী? 

ব্রেনের মধ্যে একদম বাইরের দিকে থাকে গ্রে ম্যাটার। সম্পূর্ণ সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেমকে যদি একটা ব্যস্ত অফিসের সঙ্গে তুলনা করা যায়, তবে গ্রে ম্যাটার হল সেই সেই ব্যক্তি বা কমিটি যারা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে। গ্রে ম্যাটার এর বিভিন্ন অংশ বিভিন্ন অঙ্গ পরিচালনা বা চিন্তা ভাবনার কাজ করে, আর তাদের মধ্যে সম্পর্ক বজায় রাখে হোয়াইট ম্যাটার।

পবন পাল আরও জানান, gray matter-এর ক্ষমতা কমলে মানুষের ভাবনা-চিন্তা করার ক্ষমতা কমে যেতে পারে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে দেখা যায়, করোনা রোগীরা সেরে ওঠার পর তাঁরা কথায় কথায় রেগে যাচ্ছেন অথবা মুষড়ে পড়ছেন বা মুড সুইং করছে। এগুলো সব  gray matter-এর ক্ষয়ের ফলে হতে পারে। 

গবেষকরা এও জানাচ্ছেন, করোনা থেকে সেরে ওঠার পর প্রায় ১৫ শতাংশ মানুষ নিউরোলজিক্যাল সমস্যায় পড়ছেন। চিকিৎসকদের পরামর্শ, করোনা সেরে গেলেও সেজন্য শরীরের যত্ন নেওয়া বিশেষভাবে প্রয়োজন। প্রোটিন, দুধ, ফল, সবজি খাওয়া বিশেষ দরকার। এছাড়াও নিয়মিত ব্যায়াম করা দরকার।