scorecardresearch
 
স্পেশাল

Pinaka Missile: শত্রুঘাঁটিকে কবরস্থান বানাবে এই মিসাইল, সীমান্তের ওপারে থাকলেও রক্ষা নেই

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 1/9

ভারতীয় সেনা এবং ভারতীয় প্রতিরক্ষা অনুসন্ধান সংগঠন ডিআরডিও গত ১৫ দিনে দেশের বিভিন্ন স্থানে পিনাকা মিসাইলের সফল পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে। সব মিলিয়ে চব্বিশটি পরীক্ষা করা হয়েছে। এই পরীক্ষায় পিনাকা মিসাইল এর টার্গেট সম্পূর্ণ সঠিক ভাবে এবং গতির সঙ্গে লক্ষ্যভেদ করেছে।

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 2/9

পিনাকা মিসাইল এনহান্সড রকেট সিস্টেম (Pinaka Missile Enhanced Rocket System) এবং পিনাকা এরিয়া ডিনিয়াল মিউনিশন রকেট Pinaka Area Denial Munition - ADM সিস্টেমের সফল পরীক্ষা করা হয়েছে। এই দুটি টেকনিক পিনাকা মিসাইল এর সিস্টেম এর নতুন ভার্সন এর মধ্যে এর ক্ষমতা, নেভিগেশন, সঠিক লক্ষ্যমাত্রায় ভেদ করা এবং গতি বাড়ানো হয়েছে।

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 3/9

পিনাকা লঞ্চ করা থেকে নিয়ে লক্ষ্যভেদ করা পর্যন্ত রাডার ইলেক্ট্রো অপটিক্যাল গেটিং সিস্টেম এবং টেলিমেট্রি সিস্টেম সহ বিভিন্ন বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করা হয়। এই মিসাইল এর সমস্ত সিস্টেম সফলতা পূর্বক পার করা হয়েছে এবং উচ্চতম গতি এবং সঠিক লক্ষ্যমাত্রায় টার্গেটকে ধ্বংস করেছে। এই মিসাইল এর নাম ভগবান শিবের ধনুক পিনাক থেকে রাখা হয়েছে।

 

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 4/9

আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে, পিনাকা মিসাইল সিস্টেম ৪৪ সেকেন্ডে ১২টি মিসাইল লঞ্চ করতে পারে। এটি প্রায় ৪ সেকেন্ডে একটি মিসাইল ফায়ার হয়। ২১৪ ক্যালিবারের এই লঞ্চার থেকে একের পর এক ১২ টা পিনাকা রকেট লক্ষ্যভেদ করতে পারে। হঠাৎ শত্রুর ঠিকানাকে কবরস্থানে বদলে দিতে সবচেয়ে ভালো হাতিয়ার। রকেট লঞ্চার ১৭ কিলোমিটার এর কাছের টার্গেট থেকে নিয়ে ৯০ কিলোমিটার পর্যন্ত শত্রুকে নাস্তানাবুদ করতে পারে।

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 5/9

রকেট লঞ্চার ৩টি ভেরিয়েন্ট রয়েছে। পিনাকা ১-এর এটি ৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত হামলা করতে পারে। পিনাকা ২,  ৯০ কিলোমিটার পর্যন্ত এবং পিনাকা ৩ যেটা এখনও নির্মাণ হচ্ছে। সেটি ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্রা নির্দিষ্ট ভেদ করতে পারে। এই মিসাইলের দৈর্ঘ্য ১৬ ফুট ৩ ইঞ্চি থেকে নিয়ে ২৩ ফিট সাত ইঞ্চি পর্যন্ত রয়েছে। এর ব্যাস ৮.৪ ইঞ্চি।

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 6/9

লঞ্চার থেকে ছাড়া পিনাকা রকেট এর উপরে হাই এক্সপ্লোসিভ ফ্রাগমেন্টেশন hmx ক্লাস্টার এন্ড পার্সোনাল এন্টি ট্যাংক এবং বিস্ফোরক সুরঙ্গ উড়িয়ে দেওয়ার হাতিয়ার লাগানো যায়। এই রকেটের ১০০ কেজি পর্যন্ত ওজন এর হাতিয়ার ছুড়তে পারে। এই মিসাইল সিস্টেম এর শুরু ১৯৮৬ সালে হয়েছিল।

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 7/9

পিনাকা রকেটের স্পিড ৫৭৫৭.৭০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা অর্থাৎ ১ সেকেন্ডে ১.৬ কিলোমিটার গতিতে হামলা করতে পারে। শত্রুর পক্ষে সুযোগ সুবিধা পাওয়া যাবে না। যেটি টার্গেট থেকে দূরে যেতে পারে। পিনাকা রকেট মাল্টিপেল রকেট লঞ্চার এটি ভারতীয় সেনার জন্য ডিআরডিও বানিয়েছে।

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 8/9

সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে যে পিনাকা রেজিমেন্টের সৈন্য দল এর সঞ্চালনার প্রস্তুতি বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। চিন এবং পাকিস্তানের সীমার সঙ্গে মজুত থাকা সেনাদের পিনাকা মিসাইল সরবরাহ করা হবে। এই রকেট লঞ্চার রাখা হবে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে পিনাকা রেজিমেন্টের অটোমেটেড গান এন্ড পজিশনিং সিস্টেম এর সঙ্গে ১১৪ লঞ্চার ৪৫ টি কামান পোস্ট করা হবে। মিসাইল রেজিমেন্টের সঞ্চালন ২০২৪ এর মধ্যে শুরু করার যোজনা নেওয়া হয়েছে।

 

পিনাকা মিসাইল, শত্রুর যম
  • 9/9

কারগিল যুদ্ধের সময় এই মিসাইল লোড করে উঁচু এলাকাগুলিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেখান থেকে এই রকেটগুলি শত্রুর ঠিকানা খুঁজে সেগুলি ধ্বংস করে দিয়েছিল। সমস্ত পাকিস্তানি শত্রুরা পাহাড়ে ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিল। কারণ এই রকেট এত গতিতে হামলা করে যে শত্রুপক্ষ পালানোর সুযোগ পায় না।