scorecardresearch
 

Andrew Symonds Death: সাইমন্ডসের মৃত্যু, ফের চর্চায় 'মাঙ্কিগেট', কী ঘটেছিল সেদিন?

আসলে, ঘটনাটি ২০০৭-০৮ সালের, যখন ভারতীয় দল অস্ট্রেলিয়া সফরে ছিল। এরপর অস্ট্রেলিয়া চার টেস্টের সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৩৩৭ রানে জিতেছিল। দ্বিতীয় ম্যাচটি সিডনিতে ৬ জানুয়ারি ২০০৮ থেকে অনুষ্ঠিত হয়। এই টেস্টে ব্যাট করছিলেন সাইমন্ডস। তখনই হরভজনের  সাইমন্ডসের ঝগড়া হয়। পরে সাইমন্ডসের অভিযোগ, ভাজ্জি তাঁকে 'বানর' বলেছেন। এরপর তিন টেস্ট ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধও হন হরভজন।

সাইমন্ডস ও হরভজন সাইমন্ডস ও হরভজন
হাইলাইটস
  • ২০০৮ সালে ঘটে মাঙ্কিগেট
  • হরভজনের সঙ্গে ঝামেলা গড়ায় আদালতে

অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ক্রিকেটার অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছেন। কুইন্সল্যান্ড পুলিশ জানিয়েছে, শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহরের প্রায় ৫০ কিলোমিটার পশ্চিমে হার্ভে রেঞ্জে এ ঘটনা ঘটে। পরের মাসেই ৯ জুন তাঁর জন্মদিন। 

সাইমন্ডস তাঁর কেরিয়ারে ২৬টি টেস্ট, ১৯৮টি ওয়ানডে এবং ১৪টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। এতে তিনি টেস্টে ১৪৬২ রান, ওয়ানডেতে ৫০৮৮ রান এবং টি-টোয়েন্টিতে ৩৩৭ রান করেছেন। সাইমন্ডস আইপিএলে ডেকান চার্জার্স এবং মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে ৩৯টি ম্যাচ খেলে ৯৭৪ রান করেন। 

সাইমন্ডস অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি ক্রিকেটার ছিলেন, তবে তিনি বিতর্কেও গভীরভাবে জড়িত ছিলেন। তাঁর কেরিয়ারে এমন অনেক বিতর্ক রয়েছে, যা সারা বিশ্বে পরিচিত। পাব-এ লড়াই হোক বা মাঠে কারও সঙ্গে ঝগড়া হোক, সাইমন্ডসকে নিয়ে অনেক বিতর্ক রয়েছে। এমনই একটি বিতর্ক হয়েছে 'মাঙ্কিগেট'। এতে হরভজন সিংয়ের সঙ্গে সাইমন্ডস তর্কে জড়ান। 

সিডনি টেস্টে 'মাঙ্কিগেট' হয়ে গেলেন সাইমন্ড ও হরভজন

আসলে, ঘটনাটি ২০০৭-০৮ সালের, যখন ভারতীয় দল অস্ট্রেলিয়া সফরে ছিল। এরপর অস্ট্রেলিয়া চার টেস্টের সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৩৩৭ রানে জিতেছিল। দ্বিতীয় ম্যাচটি সিডনিতে ৬ জানুয়ারি ২০০৮ থেকে অনুষ্ঠিত হয়। এই টেস্টে ব্যাট করছিলেন সাইমন্ডস। তখনই হরভজনের  সাইমন্ডসের ঝগড়া হয়। পরে সাইমন্ডসের অভিযোগ, ভাজ্জি তাঁকে 'বানর' বলেছেন। এরপর তিন টেস্ট ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধও হন হরভজন।

সফর বাতিলের হুমকিও দিয়েছিল বিসিসিআই 
এই ঘটনায়, অস্ট্রেলিয়ান মিডিয়া তীব্র ভাবে হরভজনকে আক্রমণ করে। এরপরেই বিসিসিআই মাঝপথে সফর শেষ করার হুমকি দেয়। এমতাবস্থায় বিষয়টি সিডনি আদালতে পৌঁছায়। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়। আপিলটিতে রায় দেওয়া হয়েছিল  যে ভাজ্জির বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্যের কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এরপরেই হরভজনের তিন টেস্টের নিষেধাজ্ঞা উঠে যায়। এই মামলাটি এখনও 'মাঙ্কিগেট' কেলেঙ্কারি হিসেবে পরিচিত।

আরও পড়ুন: মাঙ্কিগেট থেকে চাহালকে হেনস্থা, বারবারই বিতর্কে সাইমন্ডস

আরও পড়ুন: গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রয়াত অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অলরাউন্ডার অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস

সচিন তাঁর আত্মজীবনীতেও এটি উল্লেখ করেছেন।

সচিন তাঁর আত্মজীবনীতে লিখেছেন যে ভাজ্জি এবং আমি যখন ব্যাটিং করছিলাম, তখন বিষয়টি উত্তপ্ত হতে শুরু করে। হরভজন ৫০ রান পূর্ণ করলে সাইমন্ডস বিরক্ত হন। হরভজন সিংকে উত্তেজিত করতে শুরু করেন। ভাজ্জি বেশ কয়েকবার এসে সচিনকে বলেছিলেন যে সাইমন্ডস তাঁকে উস্কে দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তবে ভারতীয় অফস্পিনারকে শান্ত করেন সচিন। কারণ তখন এই দুই ব্যাটারের ভাল খেলা খুব জরুরী ছিল। আর অস্ট্রেলিয়া চাইছিল যে কোনও মূল্যে এই পার্টনারশিপ ভেঙে ফেলতে। এদিকে, একটি রান নেওয়ার পরে, ভাজ্জি মজা করে ব্রেট লিকে পিঠে চাপড় মেরেছিলেন, এতে ফিল্ডিং করা সাইমন্ডস বিরক্ত হন। এর জেরে হরভজন ও সাইমন্ডসের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় শুরু হয়। সাইমন্ডস যখন গালাগালি শুরু করেন, ভাজ্জিও থাকতে পারেননি এবং বিতর্ক এতটাই বেড়ে যায় যে তা আদালত অবধি গড়ায়।