scorecardresearch
 

Work from Home : অফিস এসে কাজ করতে বলা হয়েছিল, চাকরিই ছেড়ে দিলেন Apple কর্মী

Work from Home: অফিসে গিয়ে কাজ করার জন্য ডাকার পরে অনেকে চাকরি থেকে পদত্যাগ করেছেন। বিশ্বের কিছু অংশে কোভিড মামলা কমে এসেছে। আর তার ফলে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকা অফিসগুলি ফের চালু করা হয়েছে। অনেক মানুষ আবার অফিস থেকে কাজ করার বিষয়ে বেশ উত্তেজিত।

অফিসে গিয়ে কাজ করতে বলায় চাকরি ছাড়লেন অ্যাপল কর্মী (প্রতীকী ছবি) অফিসে গিয়ে কাজ করতে বলায় চাকরি ছাড়লেন অ্যাপল কর্মী (প্রতীকী ছবি)
হাইলাইটস
  • অফিসে গিয়ে কাজ করার জন্য ডাকার পরে অনেকে চাকরি থেকে পদত্যাগ করেছেন
  • বিশ্বের কিছু অংশে কোভিড মামলা কমে এসেছে
  • আর তার ফলে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকা অফিসগুলি ফের চালু করা হয়েছে

অফিসে গিয়ে কাজ করার জন্য ডাকার পরে অনেকে চাকরি থেকে পদত্যাগ করেছেন। বিশ্বের কিছু অংশে কোভিড কেস কমে গিয়েছে। আর তার ফলে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকা অফিসগুলি ফের চালু করা হয়েছে। অনেক মানুষ আবার অফিস থেকে কাজ করার বিষয়ে বেশ উত্তেজিত।

ভিন্ন মতামত
তবে একাংশ  আবার অফিস থেকে কাজ করার ধারণাকে মানতে চাইছেন না। কারণ তাঁরা মনে করেন যে এটা প্রোডাক্টিভিটিকে বাধা দেয়। এর পাশাপাশি ফ্লেক্সিবিলিটি কেড়ে নেয় এবং যাতাযাত-সহ সহ অন্যান্য জিনিসগুলিতে খুব বেশি সময় খরচ হয়।

যেমন ভাবা, তেমন কাজ
অ্যাপলের মেশিন লার্নিং ডিরেক্টর ইয়ান গুডফেলোও একই কথা ভেবেছিলেন। অফিসে ফিরে যেতে বলার পর তিনি অ্যাপলের চাকরি ছেড়ে দেন।

আরও পড়ুন: বীরভূমে হইহই, দাপাচ্ছে যুদ্ধের ট্যাঙ্ক, তবে কারণটা বেশ মজাদার 

আরও পড়ুন: ভেনিসে সমুদ্রের নীচে মিলল ২ হাজার বছরের প্রাচীন রাজপথ 

আরও পড়ুন: এই মাছের ৫৫৫টি দাঁত! রোজ ২০টা ভাঙে আবার গজায়... 

কারণ জানিয়ে গিয়েছিলেন 
দ্য ভার্জের জো শিফারের মতে, ইয়ান তাঁর দলের সদস্যদের কোম্পানি ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে অবহিত করেছেন। জো টুইট করেছেন, "ইয়ান গুডফেলো, অ্যাপলের মেশিন লার্নিং ডিরেক্টর, অফিস থেকে কাজ করার নীতিতে ফিরে আসার কারণে কোম্পানি ছেড়ে যাচ্ছেন। কর্মীদের উদ্দেশ্যে একটি নোটে, তিনি বলেছিলেন "আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে আরও নমনীয়তা আমার দলের জন্য সেরা নীতি হত।" তিনি সম্ভবত কোম্পানির সবচেয়ে এমএল বিশেষজ্ঞ ছিলেন।

ইয়ানের কোম্পানি ছাড়ার সিদ্ধান্ত অ্যাপলের হাইব্রিড কাজের নীতি প্রভাবিত হয়েছিল বলে খবর। নতুন কাজের নীতিতে কর্মচারীদের ১১ এপ্রিলের মধ্যে সপ্তাহে অন্তত একদিন, ২ মে থেকে সপ্তাহে অন্তত দুই দিন এবং ২৩ মে থেকে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন অফিস থেকে কাজ করতে হবে। 

অ্যাপল তাঁর কর্মীদের অফিস এসে কাজ করতে বলেছে। ২৩ মে থেকে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন অফিস। তবে অ্যাপলের নতুন পদক্ষেপে কিছু কর্মী খুশি নন।

কর্মীদের ইমেল
অ্যাপল কর্মীরা অফিসে ফিরে আসার খারাপ দিকগুলি উল্লেখ করে অ্যাপলের সিইও টিম কুকের কাছে একটি চিঠি লিখেছিলেন। কুকের কাছে একটি ইমেলে কর্মীরা বলেছেন, "সকলের অন্তর্ভুক্তি ছাড়া যে ফ্লেক্সিবিলিট নিয়ে আসে, তখন আমাদের মধ্যে অনেকেই মনে করেন যে আমাদের পরিবারের, আমাদের সুস্থতার মধ্যে একটা জিনিস বেছে নিতে হবে, যাতে আমাদের সেরা কাজ করার ক্ষমতা দেওয়া যায় অথবা অ্যাপেল বেছে নেওয়া। এটা এমন একটা সিদ্ধান্ত, যা আমরা কেউই হালকাভাবে নিই না। এবং এমন একটি সিদ্ধান্ত যা অনেকেই নিতে চান না।"