scorecardresearch
 

Mamata Banerjee Oath : শপথের পরই তাল কাটল! হিংসা নিয়ে রাজ্যপালের দাবি ওড়ালেন মমতা

মমতা জানান, তিন মাস আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি দেখার দায়িত্ব ছিল নির্বাচন কমিশনের হাতে। তিনি আজ থেকেই দায়িত্ব নেবেন। কড়া হাতে সব মোকাবিলা করবেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং জগদীপ ধনখড় (বাঁ দিক থেকে) মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং জগদীপ ধনখড় (বাঁ দিক থেকে)
হাইলাইটস
  • তৃতীয় বার মুখ্যমন্ত্রী পদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শপথ নেওয়ার অনুষ্ঠানেই তাল কাটল
  • রাজভবনে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন
  • সঙ্গে সঙ্গে কার্যত পাল্টা জবাব দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

তৃতীয় বার মুখ্যমন্ত্রী পদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শপথ নেওয়ার অনুষ্ঠানেই তাল কাটল। রাজভবনে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। সঙ্গে সঙ্গে কার্যত পাল্টা জবাব দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতা জানান, তিন মাস আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি দেখার দায়িত্ব ছিল নির্বাচন কমিশনের হাতে। তিনি আজ থেকেই দায়িত্ব নেবেন। কড়া হাতে সব মোকাবিলা করবেন।

শপথ নেওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় বলেন, সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। মা-মাটি-মানুষকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমাদের প্রথম গুরুত্ব কোভিডকে কন্ট্রোল করা। সাড়ে ১২টায় মিটিং ডাকা হয়েছে। আপনাদের জানিয়ে দেব। 

তিনি বলেন, দুই হচ্ছে, সবাই শান্তি, শৃঙ্খলা বজায় রাখুন। কোথাও যেন হিংসা না হয়। কড়া হাতে মোকাবিলা করব। কড়া পদক্ষেপ নিতে পিছপা হব না। পরে সবাইকে আমন্ত্রণ জানাব।

এদিন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় বলেন, তৃতীয় বারের জয়ী হওযার জন্য তাঁকে ধন্যবাদ। ভারত একটা মহান গণতান্ত্রিক দেশ। আইনের শাসন থাকবে বলে মনে করি। আমরা এমন একটা অবস্থায় রয়েছে মানুষ ভয়ে আছেন। দেশ এবং বাইরে থেকে অনেকে আমাকে হিংসার ব্যাপারে জানাচ্ছেন। 

জগদীপ ধনখড় বলেন, মমতাকে জানানোর পর তিনি ব্যবস্থা নিয়েছেন। আমাদের প্রথম দায়িত্ব হিংসা থামানো। যা সমাজকে প্রভাবিত করেছে। ভোট পরবর্তী হিংসা গণতন্ত্রের পক্ষে ভাল নয়। শিশু, মহিলাদের নিরাপত্তা দেবেন। আমি মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমার আশা মুখ্যমন্ত্রী আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে মুখ্যমন্ত্রী ব্যবস্থা নেবেন। মুখ্যমন্ত্রী, আমার ছোট বোন এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। আপনি নতুন ধরন তৈরি করবেন।

এরপর যেন পাল্টা জবাব দেন মমতা। বলেন, আমি আজ এখনই শপথ নিলাম। এর আগে আপনারা জানেন, নির্বাচন কমিশনের হাতে ছিল। তিন মাস কাজ করেছে। আজ গিয়ে আমি নতুন সেট আপ তৈরি করব। অনেক নিষ্ক্রিয় ছিল।

তিনি আরও বলেন, কেউ যেন কারও প্রতি প্রতিহিংসাপরায়ন আচরণ না করে। কোনও কোনও রাজনৈতিক দল যেখানে জিতেছে, সেখানে অত্যাচার করছে। এমন করলে কেউ যেন রেহাই না পায়। ৩ মাস এই সেটা আপ আমার ছিল না।